গুগল থেকে ইনকাম করার সেরা দুটি উপায় দেখেনিন সবাই এবং আপনিও ইনকাম করুন গুগল পাবলিশার হয়ে ২০২২

হ্যালো বন্ধুরা আসসালামু আলাইকুম কেমন আছেন সবাই আশা করি সকলে ভালোই আছেন ইনশাল্লাহ খুব ভাল রয়েছে তাই আজকে আপনাদের সামনে আরও একটি নতুন চমৎকার আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম আশা করি এই আর্টিকেল থেকে সকলে উপকৃত হবেন অবশ্যই আপনাকে পুরো আর্টিকেলটি পড়তে হবে তাহলে এখান থেকে কিছুটা হলেও জানতে পারবেন এবং শিখতে পারবে।

আমাদের আজকের বিষয় হয়তবা আপনি টাইটেল দেখে বুঝে গিয়েছেন আজকে আমরা যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব কিভাবে গুগল থেকে ইনকাম করা যায় খুব সহজেই কিন্তু আপনি গুগল থেকে কাম করতে পারবেন এই বিষয় সর্ম্পকে আজকে আপনাদের সামনে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব।

যদি আপনি আমাদের আজকে আর্টিকেলটি পড়েন তাহলে আশা করি আপনিও গুগল থেকে খুব সহজেই কিন্তু ইনকাম করতে পারবেন সহজ কিছু বিষয় অবলম্বন করে যে বিষয়গুলো নিয়ে আমাদের আজকের আর্টিকেলটি সাজানো হয়েছে।

গুগল থেকে কিন্তু সকলেই ইনকাম করতে পারবে কেননা গুগোল হচ্ছে বিশ্বের অন্যতম সেরা একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম যেখান থেকে যে কেউ খুব সহজে এবং যেকোন দেশ থেকে আপনি ইনকাম করতে পারবেন তাদের কিন্তু সকল দেশে পার্টনারশিপ রয়েছে বা পেমেন্ট সিস্টেম রয়েছে।

আপনি খুব সহজেই কিন্তু গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবেন কিছু বিষয় অবলম্বন করে এবং যে যে বিষয়গুলো অবলম্বন করে আপনার ইনকাম করবেন সেই বিষয়গুলো আজকের পোস্টে উল্লেখ করা হবে আশা করি আপনি পুরো আর্টিকেলটি পড়লে এখান থেকে খুব ভালো বিষয় সম্পর্কে জানতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে সকল কিছু প্রযুক্তির উন্নতি হয়েছে যা আগে হয়তো বা এত উন্নতি ছিলনা এখন কিন্তু আপনি বিশ্বের অন্যতম সেরা সার্চ ইঞ্জিন গুগল এর প্ল্যাটফর্ম থেকে ইনকাম শুরু করতে পারবেন খুব সহজে।

একজন সাধারণ মানুষ কিন্তু গুগল থেকে খুব সহজভাবে ইনকাম করতে পারবে তাদের অনেকগুলো সেক্টরে রয়েছে যে সেক্টর গুলোতে কাজ করে আপনি ইনকাম করতে পারবেন এবং সকল ধরনের সেক্টর কিন্তু যে কোন মানুষ কাজ করতে পারবে অবশ্যই সেখানে তাদের কিছু অভিজ্ঞ থাকতে হবে।

গুগল থেকে ইনকাম করা কি সত্যি সম্ভব ?

এই প্রথম প্রশ্নটি হয়তো অনেকেরই থাকতে পারে যে কিভাবে গুগল থেকে ইনকাম করা যায়কেননা এটি কিন্তু বিশ্বের অন্যতম একটি সার্চ ইঞ্জিন প্ল্যাটফর্ম অবশ্যই এখান থেকে ইনকাম করার সিস্টেম রয়েছে যে সিস্টেম গুলো সাধারণত অনেকেই জানেন না যার কারণে আপনি গুগল থেকে ইনকাম করতে পারতেছেন না।

যদি আপনি তাদের ইনকাম করার সোর্স গুলো জানতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনিও খুব সহজে গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবেন প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা এবং এই টাকাগুলো কিন্তু আপনি 100% পেমেন্ট নিতে পারবেন কোন প্রকার পেমেন্ট সমস্যা করবে না গুগল গুগলের কিন্তু প্রায় 20 মিলিয়ন মানুষ এর অধিক কাজ করতেছে শুধু পাবলিশার হিসেবে।

অর্থাৎ গুগোল অ্যাডসেন্সে কিন্তু বিশ মিলিয়নের বেশি মানুষ তাদের ওয়েবসাইট এড দেখে ইনকাম করতেছে খুব সহজে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আপনিও কিন্তু পারবেন এইভাবে গুগল থেকে খুব দ্রুত এবং সহজ উপায়ে ইনকাম করতে।

অনেকেই হয়তো বিশ্বাস করবেন না যে গুগল থেকে ইনকাম করা সম্ভব যদি আপনার আগ্রহ থাকে তাহলে কিন্তু আপনি গুগল থেকে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন এবং অবশ্যই গুগল থেকে ইনকাম করা যায় এটি মনে রাখতে হবে আপনাকে।

এবং এখান থেকে আপনার ধারনার বাহিরে আপনি ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই কেননা গুগোল হচ্ছে বিশ্বের অন্যতম সেরা একটি অনলাইন প্লাটফর্ম যাদের সকল ধরনের সার্ভিস রয়েছে বিশেষ করে google.com মানুষ তাদের সার্চ ইঞ্জিনটি রয়েছে সেখানে কিন্তু প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ হাজার মানুষ বিভিন্ন বিষয়ে সার্চ করে থাকে।

এটি কিন্তু শুধুমাত্র বাংলাদেশের সীমাবদ্ধ নয় পৃথিবীর যত দেশ রয়েছে বেশিরভাগ দেশেই কিন্তু গুগল সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে এবং সেখানকার মানুষ যেকোন প্রয়োজনে বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে সার্চ করে থাকে এবং সাথে সাথে কিন্তু সেটা ফলাফল গুগল থেকে তারা দেখতে পায়।

আপনি গুগলে কোন কিছু লিখে সার্চ করেন আশা করি আপনি এই সমস্যার সঠিক সমাধান পেয়ে যাবেন যদি আপনি প্রথম পেজে সঠিক সমাধান না পান তাহলে দ্বিতীয় হয়েছে অবশ্যই পেয়ে যাবেন কেননা গুগোল একটি বিষয় নিয়ে শুধুমাত্র একটি পোস্ট নেই আপনি যেকোন উপায়ে বুঝতে পারবেন সেজন্য অনেক ধরনের পোস্টগুলো রয়েছে।

একটি বিষয় নিয়ে কিন্তু গুগোল অনেক ধরনের পোস্ট হয়েছে আপনি যেকোন ধরনের পোস্ট সেখান থেকে দেখে নিতে পারেন এবং মোট কথা হচ্ছে এখানে যেকোন বিষয় সম্পর্কে তার সঠিক সমাধান পাওয়া যায় যেটি হয়তোবা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনের খুব সহজে পাওয়া সম্ভব নয়।

এখানে কিন্তু অনেক লোক কাজ করে অর্থাৎ অফিশিয়াল ভাবে কিন্তু তাদের অনেক লোক রয়েছে এছাড়াও আপনি অফিশিয়াল ছাড়াও ইনকাম করতে পারবেন সেগুলো হচ্ছে অ্যাড নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে বা রিভেনুয়ের এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন গুগল থেকে আপনি।

গুগল থেকে ইনকাম করার মাধ্যমঅনেক রয়েছে যেগুলোতে আপনি কাজ করে খুব সহজেই গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবেন আমাদের আজকের আর্টিকেলে দেখব গুগোল থেকে কিভাবে তিনটি সহজ উপায়ে ইনকাম করবেন যে সহজ উপায়গুলো অবলম্বন করার বাংলাদেশসহ পৃথিবীর সকল দেশের মানুষ খুব সহজেই কিন্তু ইনকাম করতেছে।

আপনি কিছুটা পরিশ্রম করেন এবং চেষ্টা করেন তাহলে কিন্তু আপনিও পারবেন গুগল থেকে ইনকাম করতে এই মাধ্যম গুলোর মাধ্যমে যে কোনো মাধ্যম আপনি বেছে নিতে পারেন এখান থেকে আপনার যদি ভালো লাগে এই সেক্টরটি বেছে নিয়ে কাজ শুরু করতে পারেন কোন প্রকার সমস্যা নেই।

যে কোন মানুষ কিন্তু এই মাধ্যম গুলোতে কাজ করে ইনকাম করতে পারবে এবং এখান থেকে আসা লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজে জেটি হয়তোবা আমার সাধারণত অফলাইনে করতে পারি না অর্থাৎ সাধারণ কোনো কাজ করে কিন্তু আমরা মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারিনা।

কিন্তু আপনি ঘরে বসে শুধুমাত্র অনলাইনে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন গুগোল সহ আরও বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট থেকে নিজে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে কিন্তু সেখান থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন আপনি।

তাহলে চলুন এখন আমরা দেখে নেবো কিভাবে আপনি গুগোল থেকে খুব সহজে ইনকাম করবেন এবং কি কি বিষয় অবলম্বন করে গুগল থেকে ইনকাম করা যায় এইগুলো নিয়ে এখন আপনাদের সাথে বিস্তারিতভাবে আলোচনা শুরু করা হবে।

গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট থেকে আয়

আপনি কিন্তু ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজে জেটি হয়তোবা কিছু সংখ্যক মানুষ জানেন অর্থাৎ যারা অনলাইনে থাকে না তারাও কিন্তু জানে যে অনলাইনে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইনকাম করা সম্ভব তার মধ্যে অন্যতম একটি উপায় হচ্ছে গুগল এডসেন্স নিয়ে আপনি কিন্তু ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজে।

একটি ওয়েবসাইট থেকে কিন্তু প্রতিদিন অনেক টাকা ইনকাম করা সম্ভব গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে কেননা গুগোল অ্যাডসেন্সে কিন্তু কোন প্রকার লিমিট নেই যে আপনি একদিনের বেশি ইনকাম করতে পারবেন না এরকম কোন প্রকারে লিমিট কিন্তু গুগোল অ্যাডসেন্সে নেই।

আপনার সম্পূর্ণ ইনকাম নির্ভর করবে আপনার ওয়েবসাইটের ট্রাফিক বা ডিজিটর এর উপর নির্ভর করে যদি আপনার ওয়েবসাইট ট্রাফিক খুব বেশি থাকে তাহলে কিন্তু একদিনে আপনি 100 ডলার ইনকাম করতে পারবেন আর যদি আপনার ওয়েবসাইট ট্রাফিক না থাকে তাহলে কিন্তু আপনি 1 ডলার ইনকাম করতে পারবেন না।

তো কিভাবে আপনি ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করবে এখন আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব সহজে কিন্তু আপনি আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন তাও আবার গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে খুবই চমৎকার কিন্তু একটি বিষয় যে আমরা ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করতে পারব গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে।

যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইটে কিন্তু গুগল এডসেন্স অনুমোদন নেওয়া সম্ভব যদি আপনার ওয়েবসাইটটি গুগল এডসেন্স এর পলিসি মেনে তৈরি করা হয় বা গুগল এডসেন্স পলিসি মেনে ওয়েবসাইটটি পরিচালনা করা হয় তাহলে কিন্তু আপনি গুগল এডসেন্স নিয়ে কাজ করতে পারবেন এবং এখান থেকে ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজে।

আপনাকে অবশ্যই তাদের বেসিক বা সাধারন যে নিয়ম নীতি বা পলিসি রয়েছে এই গুলো মেনে ওয়েবসাইট পরিচালনা করতে হবে তাহলে কিন্তু পরবর্তী সময়ে আপনার ওয়েব সাইটটিতে গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেতে খুব সহজ হয়ে যাবে।

এখন কিন্তু সকল জিনিসের মত এবং সকল বস্তুর মতো গুগোল প্রতিনিয়ত আপডেট হচ্ছে যার কারণে আপনার ওয়েবসাইটটি অবশ্যই গুগোল এর পলিসি মেনে তৈরি করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনার ওয়েবসাইটটিতে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে সহজে ইনকাম করতে পারবেন।

আপনার একটি ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট থাকে তাহলে কিন্তু আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই তাও আবার গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ওয়াডপ্রেস যেকোনো ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করা সম্ভব গুগল এডসেন্স দিয়ে।

যদি আপনি লক্ষ্য করেন তাহলে আমরা দেখতে পারবো যে গুগলে কোন কিছু সার্চ করার পর যে ওয়েবসাইটগুলো আমাদের সামনে প্রদর্শন করানো হয় সে ওয়েবসাইটগুলোর অনেক বেশিরভাগ কিন্তু ওয়াডপ্রেস থেকে তৈরি করা হয়ে থাকে।

যদিও বা দেশে বেশিরভাগ ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস থেকে তৈরি কিন্তু বড় বড়দের সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইটগুলো রয়েছে এগুলো কিন্তু ওয়ার্ডপ্রেস থেকে তৈরী নয় তারা নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম থেকে ওয়েবসাইটগুলো তৈরি করে থাকে তো এই বিষয়ে কথা বাড়াবোনা আমাদের মেইন টপিকে ফিরে আসা যাক।

খুব সহজেই কিন্তু আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট থেকে আপনি ইনকাম করতে পারবেন সেটি যে কোন ধরনের ওয়েবসাইট হোক না কেন অবশ্যই গুগল এডসেন্স এর পলিসি মেনে ওয়েবসাইটটি পরিচালনা করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি গুগল এডসেন্স অনুমোদন নিয়ে সেখান থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

এছাড়াও আপনি কিন্তু চাইলে ফ্রিতে ওয়েবসাইট তৈরি করে ইনকাম করতে পারবেন কোন প্রকার ইনভেস্ট করতে হবে না আপনাকে ইনকাম করার জন্য একদম ফ্রিতে কিন্তু ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন আপনি এবং সেখান থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

ফ্রিতে ওয়েবসাইট তৈরি করে ইনকাম করার জন্য আপনাকে তৈরি করতে হবে blogger.com থেকে একটি ওয়েবসাইট যেটি কিন্তু গুগলের নিজস্ব এখান থেকে আপনি ওয়েব সাইট তৈরী করে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন।

অর্থাৎ একজন মানুষ কোন প্রকার টাকা পয়সা খরচ না করে কিন্তু গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবে সেই সিস্টেমটা গুগোল কিন্তু মানুষকে করে দিয়েছে যেটি মাধ্যমে মানুষ খুব সহজে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবে এবং অনলাইন থেকে ইনকাম করা সেরা একটি প্ল্যাটফর্ম কিন্তু এটি যেখানে কোন প্রকার ইনভেস্ট ছাড়াই ইনকাম করা সম্ভব।

আপনি যদি কোন প্রকার ইনভেস্ট ছাড়া ইনকাম করতে চান তাহলে এখান থেকে ওয়েবসাইট তৈরি করে ইনকাম করতে পারবেন তাও আবার গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে এখানে কিন্তু গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেতে কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

যদি আপনার ওয়েবসাইটটি গুগলের সম্পন্ন পলিসি মেনে পরিচালনা এবং তৈরি করা হয় তাহলে কিন্তু আপনি আপনার ব্লগার ওয়েবসাইটেও গুগল এডসেন্স অনুমোদন নিয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করবেন এবং সেটি কিকি মাধ্যম তার মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে গুগল এডসেন্স সিটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইনকাম করা সম্ভব এছাড়া আরো একটি প্ল্যাটফরম রয়েছে যেখান থেকে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করা সম্ভব।

সেটি নিয়ে আমরা নিচে আলোচনা করব তো যদি আপনার ওয়েবসাইটটিতে গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেয়ে যান তাহলে সেখান থেকে কিভাবে ইনকাম করবেন এবং কি কি মাধ্যমে বুঝতে পারবেন আপনার একদিনে কত টাকা ইনকাম হবে এই গুলো সম্পর্কে আপনাকে কিছুটা ধারণা দেয়ার চেষ্টা করব।

আপনার ওয়েব সাইটটিতে প্রথমত অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য মোটামুটি ভালো পরিমাণে কনটেন্ট প্রয়োজন হবে অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইটটি যদি একটি ব্লগ ও ওয়েবসাইট হয়ে থাকে এ ক্ষেত্রে কিন্তু আপনার ওয়েবসাইটের মোটামুটি কিছু কনটেন্ট প্রয়োজন হবে গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাওয়ার জন্য।

গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাওয়ার জন্য এটি হচ্ছে সর্ব প্রথম ধাপ অবশ্যই আপনাকে কিন্তু একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে তারপরেই কিন্তু এই কাজগুলো শুরু করতে হবে আপনি ওয়েবসাইট যেকোন জায়গা থেকে তৈরি করতে পারবেন এটি কিন্তু গুগোল কোন প্রকার সমস্যা করবে না।

এবং ওয়েবসাইটের বয়স নিয়েও কোন প্রকার সমস্যা নেই আপনি আজকে ওয়েবসাইট তৈরি করে দুই দিন পরেই কিন্তু গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন সেটির কোন সীমাবদ্ধ নেই অথবা আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে এক বছর পরও গুগল এডসেন্স আবেদন করতে পারবেন

এই বিষয়গুলোর কোন প্রকার লিমিটেশন নেই যে কোন সময় আপনি কিন্তু গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন আপনার ওয়েবসাইটটি যখন পুরোপুরিভাবে আপনার কাছে মনে হবে এখন আমার ওয়েবসাইটে রেডি হয়ে গেছে তখনই চেষ্টা করবেন ওয়েবসাইটটি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার জন্য।

তো ওয়েবসাইটে মোটামুটি ভালো পরিমাণে কনটেন্ট পাবলিসিটি করার পর আপনি চেষ্টা করবেন কন্টেন্টগুলি খুব ভালোভাবে এসইও করার জন্য এক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইটে কিন্তু তাহলে খুব ভালো ট্রাফিক আসবে সার্চ ইঞ্জিন সহ আরো বিভিন্ন ধরনের মাধ্যম থেকে।

যদিও গুগল এডসেন্স নতুন পাওয়ার জন্য কোন প্রকার ট্রাফিক প্রয়োজন হয়না তারপরও চেষ্টা করবেন যেহেতু প্রতিনিয়ত গুগল আপডেট হচ্ছে সেজন্য ওয়েবসাইটে কিছু ট্রাফিক আনার জন্য যদি আপনাদের সাথে খুব ভালোভাবে এসইও করেন তাহলে আশা করব খুব দ্রুত আপনার ওয়েবসাইট ট্রাফিক বেড়ে যাবে।

এরপর হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটটি খুব সুন্দর ভাবে চেষ্টা করবেন ডিজাইন করার জন্য যদিও এটি করতে হবে ওয়েবসাইটটি তৈরি করার পর তারপরও আপনি যেকোন সময় কিন্তু ডিজাইন টি করতে পারবেন তবে হ্যাঁ অবশ্যই গুগল এডসেন্স আবেদন করার আগে আপনাকে ওয়েবসাইটের ডিজাইন করতে হবে।

চেষ্টা করবেন খুব সুন্দর ভাবে ওয়েবসাইট ডিজাইন করার জন্য যেন ওয়েবসাইটটিতে কোন প্রকার ইউজার আসলে সে যেন খুব ভালোভাবে পোস্টগুলো পড়তে পারে এবং ওয়েবসাইটটি দেখে যেন তার কাছে ভালো লাগে অনেক সময় দেখা যায় ওয়েব সাইটে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা যেমন সঠিকভাবে ওয়েবসাইটের সিএসএস কোডিং গুলো কাজ করে না যার কারণে পোস্টগুলি পড়তে সমস্যা হয়।

আপনি কোন ধরনের সমস্যা থাকতে পারে যেমন ধরুন আপনার ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড এ বিষয়টির ওপর খুবই লক্ষ রাখবেন না একজন ইউজার ওয়েবসাইট থেকে খুব দ্রুত বেরিয়ে যাওয়ার কারণ হচ্ছে ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড আপনার ওয়েব সাইটটিতে একটি পেজ লোডিং হতে সময় নেয় এক মিনিট তাহলে কিন্তু ওয়েবসাইটে ভিজিটর থাকবে না।

আমি প্রথমে বলে নিয়েছি যে বিশ্বের অন্যতম সেরা একটি সার্চ ইঞ্জিন গুগল এখানে যেকোন বিষয় সম্পর্কে আমরা যদি প্রশ্ন করি তাহলে সেটির উত্তর কিন্তু অনেক ধরনের ওয়েবসাইট থেকে ফলাফল চলে আসে যদি আপনার ওয়েবসাইটে সম্পূর্ণ পেজ লোডিং হতে 30 সেকেন্ড অথবা এক মিনিট সময় লেগে যায় এক্ষেত্রে কিন্তু ওয়েবসাইট থেকে বেরিয়ে আসবে।

সেই ফলাফল টা কিন্তু গুগোল অন্য কোন ওয়েবসাইট থাকতে পারে সেজন্য সে বেরিয়ে এসে অন্য ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে সেখান থেকে তার তথ্য সংরক্ষণ বা পড়ে নিবে। আপনাকে অবশ্যই এইজন্য ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড এই বিষয়টি খুব ভালোভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে যেন কোনোভাবেই ইউজার ওয়েবসাইট থেকে বেরিয়ে না যায়।

যদি ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড দুই সেকেন্ড থেকে পাঁচ সেকেন্ডের ভিতর সম্পূর্ণ পেজ লোডিং হয়ে যায় এক্ষেত্রে কিন্তু ইউজার আর সেই ওয়েবসাইট থেকে সম্পূর্ণ আর্টিকেল না পড়া পর্যন্ত বের হবে না।

এরপর হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটের কিছু সাধারন পেজ রাখবেন অর্থাৎ আপনি যদি লক্ষ লক্ষ করেন আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের দিকে কিন্তু কিছু পেইজ দেখতে পারতেছেন সেই পেজগুলো আপনার ওয়েবসাইটে রাখার চেষ্টা করবেন অনেক সময় কিন্তু গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেতে এই পেইজ গুলো প্রয়োজন হয়ে থাকে।

কেননা এখানে আমাদের পেজে গুলোতে কারো হয়েছে আমাদের ওয়েবসাইট সম্পর্কে এবং আমাদের ওয়েবসাইটে কি কি বিষয় পলিসি রয়েছে বা কি বিষয় সম্বন্ধে আলোচনা করা হয় এই বিষয়গুলো নিয়ে কিন্তু পেজগুলো তৈরি করা হয়েছে।

সে জন্য চেষ্টা করবেন আপনার ওয়েবসাইটে যথাযথ পেজ গুলি তৈরি করার জন্য অবশ্য এইগুলো একটি ওয়েবসাইটের জন্য ইম্পরট্যান্ট পেজ যার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে টাইটেল পেজ গুলো রয়েছে ইম্পরট্যান্ট পেজ লিস্ট।

আপনার ওয়েব সাইটে আপনি যেকোন ধরনের ক্যাটাগরি যুক্ত করতে পারেন অর্থাৎ আপনি যে বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করবেন চেষ্টা করবেন সেই সম্পর্কিত ক্যাটাগরি যুক্ত করার জন্য অবশ্যই চেষ্টা করবেন পাঁচটি থেকে 6 টি ক্যাটাগরির যুক্ত করার জন্য মিনিমাম।

ম্যাক্সিমাম আপনি যতগুলো ক্যাটাগরি যুক্ত করতে চাচ্ছেন যুক্ত করতে পারেন কোন প্রকার সমস্যা নেই তবে গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই চেষ্টা করবেন মিনিমাম 5 থেকে 6 টি ক্যাটাগরির যুক্ত করার জন্য আপনার ওয়েবসাইটে।

আশা করি এই কাজগুলো যদি আপনি খুব ভালোভাবে করেন এক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইটটি খুব সহজেই কিন্তু গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেয়ে যাবে এবং একবার যদি আপনার ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেয়ে যায় তাহলে কিন্তু আপনি খুব সহজেই সেখান থেকে ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

এখান থেকে কিন্তু আপনি আনলিমিটেড ইনকাম করতে পারবেন আপনার ধারনার বাহিরে আমরা যদি সাধারণভাবে বাহিরে কোন প্রকার কাজ করি তাহলে আমাদের সাধারন কাজ গুলো দিন হাজিরা সর্বোচ্চ 500 থেকে 600 টাকা হয়ে থাকে কিন্তু আপনি যদি অনলাইনে কাজ করেন তাহলে কিন্তু আপনার হাজিরা আনলিমিটেড।

আপনার আইডি যদি একদিনে পঞ্চাশ হাজার ট্রাফিক আসে এবং আপনার ওয়েবসাইটে কোন গুগল অ্যাডসেন্স অনুমোদন থাকে এক্ষেত্রে কিন্তু আপনার অনেক বেশি পরিমাণে ইনকাম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে যদিও বাংলা কন্টেন্টে খুব বেশি সিপিসি পাওয়া যায় না।

তবে আপনার ওয়েবসাইট ট্রাফিক যদি খুব ভালো থাকে এবং আপনি যদি খুব ভালো কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ করতে পারেন এক্ষেত্রে কিন্তু ইনকাম খুব ভালো হবে।

এখানে কিন্তু একটি বিষয় লাভজনক হয়েছে সেটি হচ্ছে বাংলা কনটেন্ট খুব দ্রুত গুগোল রেঙ্ক করানো যায় হয়তো বা ইংরেজি বা অন্য কোন ভাষায় খুব সহজেই রেঙ্ক করানো সম্ভব হয় না।

তবে বলা যায় ধারণা করে আপনার ওয়েবসাইটে যদি 1 দিনে যদি এক থেকে দেড় হাজার পেজভিউ হয় তাহলে থেকে 3 ডলার মিনিমাম ইনকাম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এটি কিন্তু বাংলা কনটেন্ট এর ক্ষেত্রে আইডিয়া করে আমি বললাম এটি আমার নিজের মতামত।

অনেক কিওয়ার্ড বা ইংরেজি কনটেন্ট রয়েছে এগুলোর সিপিসি অনেক বেশি এবং অন্য কান্ট্রিতে কে কোন প্রকার ট্রাফিক আসলে তাহলে কিন্তু অনেক বেশি পরিমাণে ইনকাম করা সম্ভব।

তো এই বিষয়ে কথা বলব না আপনি যখন আপনার ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেয়ে যাবেন তখন আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন কিভাবে ইনকাম বাড়ানো যায় এই বিষয়গুলো নিয়ে তখন আপনি নিজেই চিন্তা করা শুরু করে দিবেন।

আপনার ওয়েবসাইটটি সম্পূর্ণ ঠিকঠাক পড়ার পর বা সম্পন্ন করার পর ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারেন এটি রিভিউ করতে দুই থেকে চার সপ্তাহ লাগতে পারে।

যদি আপনার ওয়েবসাইটের সবকিছু একদম ঠিকঠাক ভাবে থাকে অনেক সময় দেখা যায় মানুষ মাত্র 24 ঘন্টার ভিতরে গুগল এডসেন্স অনুমোদন পেয়ে যাচ্ছে এক্ষেত্রে ওয়েবসাইটে কিছু পরিমাণ ট্রাফিক থাকলে খুব দ্রুত গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাওয়া সম্ভব।

আশা বুঝে গিয়েছেন কিভাবে আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করবেন এছাড়াও কিন্তু যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট থেকে আপনি ইনকাম করতে পারবেন যেমন ধরুন আপনার একটি ওয়েবসাইট হচ্ছে পড়াশোনা সম্পর্কে চাইলে কিন্তু আপনি ইনকাম করতে পারবেন তাও আবার গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে।

অথবা আপনার যদি একটি শপিং ওয়েবসাইট থাকে সেখান থেকে কিন্তু আপনি ইনকাম করতে পারবেন গুগল এডসেন্স থেকে মোটকথা গুগল এডসেন্স সকল প্রকার ওয়েব সাইটে এড দেখে ইনকাম করা সম্ভব।

আশা করি বুঝেছেন কিভাবে আপনি গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করবেন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যদি আপনার এই বিষয়ে সম্পর্কে বুঝতে সমস্যা হয়ে থাকে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন চেষ্টা করব সেটির যথাযথ উত্তর দেওয়ার।

গুগল এডমোব থেকে টাকা ইনকাম করার উপায়

গুগল থেকে বর্তমান সময়ে ইনকাম করার অন্যতম একটি মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডমোব যেটির মাধ্যমে কিন্তু আপনি খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন অনলাইন থেকে গুগলের মাধ্যমে।

বর্তমান সময়ে খুবই জনপ্রিয় কিন্তু এই মাধ্যমটি কেননা এটি ব্যবহার করে বাংলাদেশ সহ আরও বিভিন্ন দেশে কিন্তু এই সিস্টেমটি প্রচলিত রয়েছে যেটি অবলম্বন করে বিশেষ করে যারা স্টুডেন্ট তারা কিন্তু ইনকাম করতেচে সিস্টেমটি দিয়ে।

আপনিও কিন্তু পারবেন গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করতে তবে এখানে ইনকাম করতে হবে আপনাকে অ্যাপ এর মাধ্যমে আমি সমস্ত বিষয় আপনাদের সাথে তুলে ধরার চেষ্টা করব যেন আপনি গুগোল admob সম্পর্কে সমস্ত তথ্য এবং বিষয়গুলো জানতে পারেন খুব সহজেই।

গুগল এডসেন্স এর মত চাইলে আপনি গুগল এডমোব থেকেও কিন্তু ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজে এবং গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করার একটি মাধ্যম শুধুমাত্র অ্যাপ্লিকেশন থেকে ইনকাম করা সম্ভব এটি দ্বারা।

অর্থাৎ আপনি গুগল এডমোব এর এক শুধুমাত্র অ্যাপ এর ভিতরে দেখাতে পারবেন এবং এখান থেকে কিন্তু আপনি ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই কিভাবে ইনকাম করবেন এবং কিভাবে এড বসাবেন এ বিষয়ে সম্পর্কে আপনাদের সাথে আলোচনা করা হবে।

আমরা আমাদের মোবাইল ফোনে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে থাকে আমার নিজের মোবাইল ফোনটিতে কিন্তু আমি প্রায় 70 টির অধিক অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে থাকি যার মধ্যে প্রায় 40 থেকে 50 টি অ্যাপ্লিকেশন প্লে স্টোর থেকে নামানো হয়েছে।

আশা করি আপনার মোবাইল ফোনে অনেক ধরনের অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যে অ্যাপ্লিকেশনগুলো আপনি গুগল প্লে স্টোর থেকে সংরক্ষণ করেছেন যারা এই অ্যাপ্লিকেশনগুলোর তৈরি করেছে তাদের লাভ কি ?

এই বিষয়ের প্রতি অনেকেরই থাকতে পারে কেননা একটি এপ্লিকেশন তৈরি করতে কিন্তু অনেক পরিশ্রম করতে হয় অনেক কষ্ট করতে হয় তাহলে কিন্তু একজন ডেভলপার একটি অ্যাপ তৈরি করতে পারে সম্পূর্ণভাবে তাহলে সেগুলো তৈরি করে কি লাভ করতেছে এই প্রশ্নটিই অনেকের থেকে যায়।

যদি তারা লাভ না হতো তাহলে কিন্তু সে সেই অ্যাপ্লিকেশনটি তৈরি করত না এবং আমরা কিন্তু গুগল প্লে স্টোর থেকে হাজারো অ্যাপ্লিকেশন একদম ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারে সেখান থেকে অ্যাপ্লিকেশন সংরক্ষণ করতে আমাদের কিন্তু কোন প্রকার টাকা পয়সার প্রয়োজন হয়না তাহলে এগুলো করে লাভ কি ?

তার লাভ হচ্ছে সে অ্যাপ্লিকেশন এর ভিতরে বিভিন্ন ধরনের এড দেখে ইনকাম করবে যেটি আপনি যদি লক্ষ্য করেন আমরা গুগল প্লে স্টোর থেকে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ সংরক্ষণ করে থাকি এবং অনেক ধরনের অ্যাপ রয়েছে যেগুলোর ভিতরে বিভিন্ন ধরনের এড প্রদর্শন করানো হয়।

ধরুন আপনি একটি গেম সংরক্ষণ করলেন গুগল প্লে স্টোর থেকে এবং সেখানে গেম খেলার মধ্যে মাঝেমধ্যে বিভিন্ন ধরনের অ্যাড আমাদের সামনে প্রদর্শন করা হয় সে অ্যাড এর মাধ্যমে কিন্তু অ্যাপ্লিকেশনটি তৈরি করেছে তিনি ইনকাম করতেছে।

সম্পূর্ণ প্রসেসিং আপনাদের সাথে শেয়ার করব যেন আপনিও পারেন গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করতে এবং মেইন কথা হচ্ছে এখান থেকে ইনকাম করতে আপনার অবশ্যই অ্যাপ্লিকেশন প্রয়োজন হবে যার মাধ্যমে আপনি এখান থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

যেকোনো ধরনের অ্যাপ্লিকেশনে আপনি গুগল এডমোব এর এক প্রদর্শন করে ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই অবশ্যই কিছু পলিসি ও নিয়ম-নীতি মেনে আপনাকে এড প্রদর্শন করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি সঠিকভাবে গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স এর মত গুগল এডমোব এর ও কিন্তু কিছু পলিসি বা নিয়ম নীতিমালা রয়েছে যেগুলো অবশ্যই আপনাকে মানতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি গুগল এডমোব থেকে সঠিক ভাবে ইনকাম করতে পারবেন তাছাড়া কিন্তু ইনকাম করতে পারবেন না।

অ্যাপ থেকে ইনকাম করার উপায় এর জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম তৈরি করতে হবে একটি অ্যাপ্লিকেশন চেষ্টা করবে একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করার জন্য কেননা বেশিরভাগ মানুষ কিন্তু মোবাইল ফোন ব্যবহার করে।

অবশ্যই আপনাকে একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি সেখান থেকে ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই যেকোনো ধরনের অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে পারেন গুগল প্লে স্টোরে কিন্তু লক্ষ-লক্ষ অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যেখানে সকল ধরনের অ্যাপ্লিকেশন পাওয়া যায়।

আপনি চাইলে সকল ধরনের অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে পারে তবে সর্বপ্রথম কিন্তু আপনাকে ইনকামের চিন্তা করা যাবে না সর্বপ্রথম আপনাকে চিন্তা করতে হবে কিভাবে আপনার অ্যাপ্লিকেশনটির ইউজার বাড়ানো যায় তাহলে কিন্তু পরে ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজে।

অবশ্যই আপনার অ্যাপ্লিকেশনটিতে ইউজার থাকতে হবে তাহলেই কিন্তু গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করা সম্ভব হবে আপনার জন্য এবং সেটি খুব সহজভাবে ইনকাম করতে পারবেন আপনার অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে।

একজন ডেভলপার কিন্তু অনেক ধরনের অ্যাপ তৈরি করতে পারে যদি আপনি একজন ওয়েব ডেভলপার হয়ে থাকেন তাহলে ট্রেন্ডিং থাকা অ্যাপ্লিকেশনগুলি তৈরি করার চেষ্টা করবেন যেমন ধরুন রয়েছে ভিডিও এডিটিং আপনি যদি খুব সুন্দর একটি ভিডিও এডিটিং ফটো এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেন এক্ষেত্রে কিন্তু খুব বেশি ইউজার পেয়ে যাবেন।

বর্তমান সময়ে এডিটিং অ্যাপ্লিকেশনগুলি খুবই জনপ্রিয় মানুষের কাছে আমি নিজেও কিন্তু প্রায় 5 থেকে 6 টি এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতেছি আমার মোবাইল ফোনটিতে এরকমভাবে কিন্তু সকল মোবাইল ফোনে অনেক এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যেগুলো গুগল প্লে স্টোর থেকে সংরক্ষণ করা হয়েছে।

অথবা আপনি যেকোন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে পারেন কোন প্রকার সমস্যা নেই অবশ্যই গুগল এডমোব এর নিয়ম দেখি দেখে তারপর আপনার অ্যাপটি ডিজাইন বা তৈরী করার চেষ্টা করবেন তাহলে পরবর্তী সময়ে গুগল এডমোব অনুমোদন পেতে আপনার অ্যাপ্লিকেশনের জন্য সমস্যা হবেনা।

এডমোব গুগল এডসেন্স এর পার্থক্য কি

গুগল এডসেন্স ও গুগল এডমোব এর মধ্যে পার্থক্য রয়েছে অনেকেই হয়তো দুটি একই মনে করতে পারেন এখানে দুটি পার্থক্য রয়েছে যার কারণে দুটোই কিন্তু আলাদা সিস্টেম ভাবে করা এবং আপনি কিন্তু কোনভাবে দুটি একই ভাবে ব্যবহার করতে পারবেন না।

গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করা যায় দুটি পদ্ধতিতে একটি হচ্ছে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট হোক না কেন আপনি কিন্তু গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে সেই ওয়েবসাইট থেকে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন।

এরপর আরেকটি স্টেপ হচ্ছে ইউটিউব থেকে কিন্তু আপনি ইনকাম করতে পারবেন ইউটিউব সম্পর্কে সমস্ত বিষয় আপনাদের সাথে তুলে ধরব আমাদের পোস্ট এর শেষের দিকে ইউটিউব বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

তো ইউটিউব কিন্তু গুগলের অধীনে রয়েছে এবং অফিশিয়াল ভাবে যদি আপনি ইনকাম করতে চান তাহলে গুগল এডসেন্স আপনাকে ব্যবহার করতে হবে ইউটিউব এর জন্য এটি হচ্ছে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার একটি উপায়।

এবং গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করার জন্য শুধুমাত্র একটি উপায় রয়েছে সেটি হচ্ছে অ্যাপ্লিকেশন অর্থ আপনি কিন্তু শুধুমাত্র অ্যাপ এর মাধ্যমে গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করতে পারবেন এছাড়া অন্য কোন উপায় নেই গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করার বা গুগল এডমব নিয়ে কাজ করার।

আপনি যদি গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করতে চান অবশ্যই আপনাকে অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে হবে যেখানে অ্যাড প্রদর্শনের মাধ্যমে আপনি খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন এই অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে একটি কিন্তু পদ্ধতি রয়েছে গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করার এটি অবশ্যই মনে রাখতে হবে আপনাকে।

অনেকে মনে করতে পারেন যে গুগল এডমোব অনুমোদন নিয়ে ওয়েবসাইটে এড দেখে ইনকাম করা এটি কিন্তু কোনোভাবেই সম্ভব নয় কেননা গুগল এডমোব শুধুমাত্র অ্যাপ্লিকেশনের জন্য প্রযোজ্য আপনি যেকোন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে গুগল এডমোব থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

একটি অ্যাপ তৈরি করতে অবশ্যই আপনাকে অ্যাপ ডেভলপার হতে হবে অথবা চাইলে আপনি অন্য কারো দ্বারা একটি এপ্লিকেশন তৈরী করে নিতে পারেন এবং সেখানে গুগল এডমোব এর অ্যাড প্রদর্শন করাতে পারেন খুব সহজেই।

প্রথমত চেষ্টা করবেন আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি মানুষের কাছে ভালো ভাবে তুলে ধরার জন্য এবং প্রথম অবস্থায় আমি বলব কোন প্রকার এড প্রদর্শন করার দরকার নেই যখন আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি ইউজার বেড়ে যাবে তখন এড ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন।

কেননা আপনার অ্যাপ্লিকেশনটিতে যদি একদম ইউজার কম থাকে এবং এখানে যদি কোন প্রকার ইনভেলিড ক্লিক করে যায় এক্ষেত্রে কিন্তু আপনার লিমিট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে সিটি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য অবশ্যই চেষ্টা করবেন আপনার অ্যাপ্লিকেশনটিতে যখন অনেক বেশি পরিমাণে যখন হবে তখন এড ব্যবহার করার জন্য।

তাহলে কিন্তু কোন প্রকার সমস্যা হবে না আপনি খুব সহজভাবে ইনকাম করতে পারবেন এডমোব থেকে একটি এপ্লিকেশন তৈরী করার পর সুন্দরভাবে সেটি যাচাই-বাছাই করে গুগল প্লে স্টোরে আপলোড করবেন অবশ্যই মনে রাখবেন ফ্রিতে কিন্তু আপনি গুগল প্লে স্টোরে আপনার অ্যাপ্লিকেশন টি আপলোড করতে পারবেন না।

25 ডলার খরচ করে আপনাকে একটি প্লে কনসোল একাউন্ট বা কার্ড তৈরি করতে হবে যার মাধ্যমে আপনি পরবর্তী সময় অ্যাপ্লিকেশন পাবলিশ করতে পারবেন খুব সহজেই অবশ্যই নিজে একটি একাউন্ট করে নিবেন এজন্য আপনার প্রয়োজন হবে শুধুমাত্র একটি জিমেইল একাউন্ট এবং পরবর্তী সময় আপনাকে তৈরি করতে হবে গুগোল কনসোল

তাহলে কিন্তু পরবর্তী সময় আপনি খুব সহজেই আরও অনেক ধরনের অ্যাপ্লিকেশন পাবলিসিটি করতে পারবেন গুগল প্লে স্টোরে কোন প্রকার সমস্যা হবে না অবশ্যই আপনার অ্যাপে যেন কোন প্রকার সমস্যা না থাকে অনেক সময় অ্যাপের ভিতরে সমস্যা থাকার কারণে গুগল প্লে কনসোল সাসপেন্ড করে দিতে পারে গুগোল টিম।

সেজন্য যাচাই-বাছাই করে তারপরে অ্যাপ পাবলিশ করবেন গুগোল প্লেস্টরে যখন আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি 1000 + সংরক্ষণ হয়ে যাবে গুগল প্লে স্টোরে তখন আপনি চাইলে কিন্তু এড প্রদর্শন করাতে পারেন এবং সেটি হচ্ছে গুগল এডমোব এর অ্যাড যার মাধ্যমে আপনি ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই।

মূলত খুব ভালোভাবে আপনাকে কাস্টমাইজেশন করতে হবে যেমনটা আমরা বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশনে দেখতে পাই কিছুক্ষণ পরপর আমাদের সামনে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন এর এড অথবা বিভিন্ন ধরনের এড প্রদর্শন করা হয়।

আপনাকে ঠিক সেইরকম ভাবে এড প্রদর্শন করতে হবে যখন আপনার অ্যাপ টাইট অনেক বেশি পরিমাণে ইউজার থাকবে অনেকের অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে খুব বেশি ইউজার না থাকলেও প্রতিদিন প্রায় 10 থেকে 20 ডলার ইনকাম করে একটি অ্যাপ্লিকেশন থেকে কেননা তার অ্যাপ্লিকেশনটি যারা ব্যবহার করে তাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং মূল্যবান।

অবশ্যই আপনাকে খুব ভালো অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে হবে যে অ্যাপ্লিকেশনটি মানুষ বেশিরভাগ সময় ব্যবহার করবে তার কাজের ক্ষেত্রে এরকম অ্যাপ্লিকেশন যদি আপনি তৈরি করেন তাহলে অনেক বেশি পরিমাণে ইউজার পেয়ে যাবেন গুগল প্লে স্টোর থেকে।

এছাড়াও আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি প্রচার করবেন বিভিন্ন মাধ্যমে যেমন সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যম রয়েছে বা ইউটিউব রয়েছে অথবা আপনার যদি কোন প্রকার ওয়েবসাইট থেকে সেখানে আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি প্রচার করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি ইউজার বেড়ে যাবে।

এইভাবে কিন্তু আপনি গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ্লিকেশন পাবলিশ করে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে খুব বেশি পরিমাণে ডলার আর্নিং করতে পারবেন যদি আপনার ইউজার বেশি থাকে তাহলে অবশ্যই প্রথমত চেষ্টা করবেন এড প্রদর্শন না করার।

যখন আপনার এ্যাপের ইউজার বেশি হবে তখন চেষ্টা করবেন অ্যাড প্রদর্শন করানোর জন্য সে ক্ষেত্রে কোন প্রকার সমস্যা হবে না এবং আপনার ইনকাম মোটামুটি খুব ভালো হবে তখন সে অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে।

শেষ কথ

আশা করি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে আপনি গুগল থেকে ইনকাম করবেন আমি খুবই দুঃখিত চেষ্টা করেছিলাম তিনটি বিষয় নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করব কারণ দুটি বিষয় নিয়ে আমাদের মধ্যে আলোচনা করা হয়ে গেছে।

বাকি একটি বিষয় চেষ্টা করব অন্য একটি পোস্টে করার জন্য এই পোস্টে সময় না থাকার কারণে দুটি বিষয় সম্পর্কে আপনাদের সাথে আলোচনা করা হলো আশা করি আপনি যদি এই দু’টি বিষয়ে খুব ভালোভাবে মেনে কাজ করেন তাহলে গুগল থেকে প্রতিমাসে খুব ভালো পরিমাণে আর্নিং করতে পারবেন।

ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকবেন নতুন কিছু জানার জন্য এবং নতুন কিছু শিখার জন্য ধন্যবাদ সবাইকে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.