ফেসবুক থেকে টাকা আয় করুন | ফেসবুক পেজের মাধ্যমে! কিভাবে কাজ করতে হয় দেখুন বিস্তারিত ২০২২

হ্যালো বন্ধুরা আসসালামু আলাইকুম কেমন আছেন সবাই আশা করি সকলে ভালোই আছেন ইনশাআল্লাহ খুব ভালো রয়েছি তাই আজকে আপনাদের সামনে আমাদের ওয়েবসাইটের আরও একটি নতুন আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম আমাদের আজকের বিষয় হচ্ছে ফেসবুক থেকে ইনকাম করার বিশেষ কয়েকটি উপায় উপায় গুলো দেখে আপনিও কিন্তু পারবেন ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে খুব সহজে।

এবং আমাদের আজকের আর্টিকেলে ফেসবুক থেকে ইনকাম করার সেরা যে উপায় গুলো রয়েছে সেগুলো নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করা হবে অনেকেই হয়তো ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে চান অথবা অনেকে হয়তবা ফেসবুক থেকে ইনকাম করা যায় কিভাবে এই সম্পর্কে জানতে চান তাদের জন্য আমাদের আজকের আর্টিকেলটি আশা করি আপনি যদি পুরো আর্টিকেলটি পড়ে তাহলে ফেসবুক থেকে ইনকাম করার সমস্ত বিষয়ে আপনি জেনে যাবে।

এবং যদি আপনার কাছে নিয়মগুলো ভাল লাগে বা ইনকাম করার পদ্ধতি সহজ মনে হয় তাহলে কিন্তু আপনি ফেসবুকে এখন ঐ কাজ শুরু করে দিতে পারেন এবং ফেসবুক থেকে ইনকাম শুরু করতে পারেন।

কিভাবে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করে
কে না চায় অনলাইন থেকে ইনকাম করতে আমরা সকলে হয়তো অনলাইন ইনকামের কথাটা শুনলে কিছুটা চমকে যায় কেননা অনেকেই হয়তো বিশ্বাস করে না যে অনলাইন থেকে ইনকাম করা সম্ভব যদিও বর্তমান সময়ে অনলাইনে ইনকাম করা কিছুটা মুশকিলের বিষয় কিন্তু অনলাইন থেকে ইনকাম এই কথাটি অনেকেই একদম বিশ্বাস করতে চায় না তারা মনে করে যে শুধুমাত্র একটি স্বপ্ন বা একটি ভুয়া কথা।

তারা শুধু মনে করে ফেসবুক বা অনলাইনে শুধুমাত্র সময় কাটানোর জন্য মানুষ ব্যবহার করে থাকে কিন্তু এখান থেকে যে মানুষ মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করে এটি হয়তো অনেকেই বিশ্বাস করে না বিশ্বাস করে তবে তখন দেখতে পায় যে তার সামনে কেউ বা তার আশেপাশে কেউ অনলাইন থেকে ইনকাম করতেছে তখন সে বিশ্বাস করে হ্যা সত্যিই অনলাইন থেকে ইনকাম করা সম্ভব।

আপনি যদি চেষ্টা করেন অনলাইন থেকে ইনকাম করা তাহলে আপনিও পারবেন খুব সহজে ইনকাম করতে তবে এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে ধৈর্য তাহলে কিন্তু আপনি অনলাইন থেকে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন এবং আপনার ক্যারিয়ার কিন্তু আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করে গড়ে তুলতে পারবেন একদম সহজেই।

ফেসবুক থেকে টাকা বিকাশে নিবো
বর্তমানে আমাদের বাংলাদেশে এমন ইউটিউবে রয়েছে যাদের মাসিক ইনকাম 5 থেকে 6 লক্ষ টাকা এবং তারা কিন্তু প্রতি মাসে এ টাকা উত্তোলন করতে পারতেছে শুধুমাত্র অনলাইনে কাজ করে এবং অনলাইনে কিন্তু হাজার হেক্টর রয়েছে কাজ করার জন্য আপনি যে কোন সেক্টরে কাজ করতে পারেন এ বিষয় নিয়ে আমাদের ওয়েবসাইটে আরও একটি আর্টিকেল পাবলিসিটি করা হয়েছে সেখানে আলোচনা করেছি অনলাইনে ইনকাম করতে কি কি প্রয়োজন এবং কিভাবে অনলাইনে ইনকাম শুরু করবেন এই বিষয় সর্ম্পকে।

আরও পড়ুনঃ
অনলাইন ইনকাম সত্যিই সম্ভব ? অনলাইনে কাজ করতে কি কি প্রয়োজন দেখুন বিস্তারিত ২০২২

তো আজকে আমরা যে বিষয়গুলো নিয়ে কথা বলব সেগুলো আপনি দেখে নিতে পারেন হেডলাইন গুলো ফেসবুক থেকে মূলত কয়েক ভাবে ইনকাম করা সম্ভব এবং ফেসবুক থেকে কয়েকভাবে আপনার অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ায় যে একাউন্ট বা বিষয়বস্তু গুলো রয়েছে এগুলো থেকেও কিন্তু ইনকাম করা সম্ভব আমি সমস্ত বিষয় আপনাদের সাথে আলোচনা করব আপনি খুব সহজেই এখান থেকে ইনকাম করতে পারেন এবং কিভাবে ইনকামের রাস্তা খুঁজে বের করবেন এই বিষয় সর্ম্পকে আপনাদের সাথে সমস্ত ভাবে আলোচনা করা হবে অবশ্যই পুরো পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

ফেসবুক থেকে কিভাবে আয় করা যায়। ?

ফেসবুক থেকে কিন্তু অনেক ভাবে আয় করা যায় যে বিষয়গুলো হয়তো অনেকেই জানেন না আমরা সাধারনত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকি একে অন্যের সাথে যোগাযোগ করার জন্য অথবা বিশ্বে যা ঘটছে সেগুলো দেখার জন্য ও জানার জন্য আমরা কিন্তু ফেসবুক সহ আরো বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করি আপনি কি জানেন যে সকল ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া থেকে বর্তমান সময়ে ইনকাম করা সম্ভব ?

কিছুদিন পর হয়তো টিকটক থেকে ইনকাম করা সম্ভব হবে সেটি হচ্ছে অফিশিয়াল ভাবে এখন পর্যন্ত কিন্তু টিকটক থেকে ইনকাম করার কোনো রাস্তা নেই অর্থাৎ অফিশিয়াল ভাবে ইনকাম করার কোনো রাস্তা নেই কিন্তু কিছু গণমাধ্যম থেকে জানা যাচ্ছে কিছুদিন পর টিকটক থেকে অভিযোগ করা সম্ভব হয়ে যাবে এবং সেটি হচ্ছে মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে যা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে ইনকাম করা সম্ভব।

সেরকমভাবে কিন্তু কিছুদিন পর টিকটক থেকেও মানুষ ইনকাম করতে পারবে তার ভিডিও এর মাধ্যমে এবং সেই বিষয়ে হয়তো কিছুদিন পর আমরা দেখতে পারবো টিকটক অফিশিয়ালি ভাবে অ্যানাউন্সমেন্ট করবে কিভাবে ইনকাম করা যায় টিকটক থেকে।

তো ফেসবুক থেকে ইনকাম সিস্টেমটি অনেক আগে থেকেই জনপ্রিয় যদিও এখনও অনেকেই জানেন না যে ফেসবুক থেকে ইনকাম করা সম্ভব কিন্তু ফেসবুক থেকে ইনকাম মানুষ আরো অনেক আগে থেকেই শুরু করে দিয়েছে এবং আস্তে আস্তে কিন্তু ফেসবুকের ভিডিও ক্রিয়েটর অনেক পরিমাণে বেড়ে যাচ্ছে আগের থেকে এখন দেখবেন যে প্রতিটি এলাকায় একজন হলেও ফেসবুক ক্রিয়েটর অর্থাৎ ফেসবুক কনটেন্ট ক্রিয়েটর দেখতে পারবেন।

ফেসবুক থেকে ইনকাম করবো
কেননা যদি বাসায় বসে ইনকাম করা সম্ভব হয় তাহলে আমি কেন বাইরে কাজ করব এই প্রশ্ন রেখে সবার সেই রকম ভাবে যারা অনলাইন এ প্রফেশনাল ভাবে কাজ করে তারা কিন্তু কখনো বাহিরে কোন প্রকার কাজ করে না শুধুমাত্র সব সময় অনলাইনে কাজ করতে থাকে এবং তাদের মাসিক আয় কিন্তু অনেক টাকা আপনি অফলাইনে মাসিক আয় করতে পারবেন না এবং করা সম্ভব নয়।

আপনি কিন্তু অনলাইন থেকে আপনার ধারনার বাহিরে ইনকাম করতে পারবেন যা আপনি অফলাইন থেকে কোন ভাবে ইনকাম করতে পারবেন না হ্যা তবে সিস্টেম রয়েছে সেটি হচ্ছে বিজনেস করতে হবে এক্ষেত্রে কিন্তু আপনাকে অনেক বেশি পরিমাণে টাকা ইনভেস্ট করতে হবে যদি আপনি অনলাইনে কাজ করেন তাহলে কিন্তু আপনার এক্সট্রা কোন টাকা ইনভেস্ট করতে হবে না অর্থাৎ আপনার অনলাইনে কোন প্রকার টাকা ইনভেস্ট করতে হবে না শুধুমাত্র আপনার নিজের সঙ্গে প্রয়োজনীয় বিষয় লাগবে অর্থাৎ ধরুন।

আপনি এখন থেকে ফেসবুক ক্রিয়েটর এর কাজ করবেন এবং আপনি ফেসবুকে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করবেন এজন্য কিন্তু আপনার সর্বপ্রথম একটি ক্যামেরা প্রয়োজন হবে যদি আপনার লক্ষ্য করেন তবে বর্তমান সময়ে কোন মানুষ শুধুমাত্র মোবাইল ফোন দিয়ে এই কাজগুলো করতে অনেকেই মনে করেন যে হয়তোবা ক্যামেরা কিনতে হবে ভিডিও করার জন্য এই ধারণাটি একদম ভুল ফেসবুক আপনারা দেখতে পারবেন তাদের বেশিরভাগ কিন্তু মোবাইল ফোন দিয়ে ভিডিও তৈরি করে এবং সুন্দরভাবে এডিট করে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে।

শুধুমাত্র একটি মোবাইল ফোন দিয়ে কিন্তু আপনি ফেসবুকে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন এবং সেগুলো আপনার পেজে আপডেট করতে পারবেন এবং আপনার ভিডিওগুলো যদি কোয়ালিটিফুল হয় এবং মানসম্মত হয় তাহলে কিন্তু আপনার ভিডিওগুলো মানুষ দেখবে এবং পরবর্তী সময় কিন্তু আপনি ফেসবুক থেকে খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন বিভিন্ন ধরনের উপায়।

ফেসবুক শুধুমাত্র কিন্তু অফিশিয়াল ইনকাম উপায়টি নয় এছাড়াও কিন্তু আরও বিভিন্ন ধরনের উপায় রয়েছে ফেসবুক থেকে আয় করার জন্য যেটি হয়তো অনেকেই জানেন না কিছু সংখ্যক মানুষ হয়ত জানেন যে ফেসবুকে ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন পাওয়ার পর সেখান থেকে ইনকাম করা সম্ভব এটি সত্য কিন্তু এছাড়া আরও বিভিন্ন ধরনের উপায় রয়েছে ফেসবুক থেকে আয় করার জন্য যেটি সকলেই পারবে।

সর্বপ্রথম আমরা আলোচনা করবো ফেসবুক পেজ দিয়ে অর্থাৎ কিভাবে ভিডিও কনটেন্ট ক্রিয়েট করে ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করা যায় এ বিষয়ে সম্পর্কে সর্বপ্রথম আমাদের সাথে আলোচনা করব এবং এর পরবর্তী সময় কিন্তু আমরা আলোচনা করব ফেসবুকের অন্যান্য ইনকাম করার পদ্ধতি গুলো রয়েছে সেগুলো নিয়ে।

ফেসবুক পেজ থেকে কিভাবে ইনকাম করব

ফেসবুক পেজ থেকে সর্বপ্রথম যে ইনকামের উপায় কি রয়েছে সেটি হচ্ছে ফেসবুক মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে আপনি কিন্তু আপনার ফেসবুক পেজে মনিটাইজেশন পেয়ে গেলে তার পরবর্তী সময় থেকে কিন্তু খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন ফেসবুক পেজ থেকে এবং এর আগে আপনাকে কিন্তু অবশ্যই ভালোভাবে পরিশ্রম করতে হবে ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য যেটি পেতে হলে অবশ্যই আপনাকে খুব ভালোভাবে কাজ করতে হবে দক্ষতা খাটিয়ে মেধা খাটিয়ে তাহলে কিন্তু আপনি ফেসবুক থেকে মনিটাইজেশন পেয়ে যাবেন।

How to Earn Facebook

এবং একবার যদি আপনি ফেসবুক থেকে মনিটাইজেশন পেয়ে যান তাহলে কিন্তু পরবর্তী সময় থেকে আপনার আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না কেননা একটি ফেসবুক পেজ কিন্তু দিন দিন গ্রো হতে থাকে অর্থাৎ একটি ফেসবুক কিন্তু দিন দিন মানুষের কাছে আর বেশি বকতে থাকে এবং যদি ফেসবুকের ভিডিও গুলো খুব সুন্দর এবং কোয়ালিটি ফুল হয়ে থাকে তাহলে কিন্তু মানুষ এই পেজটিতে লাইক এবং ফলো করবে যার কারণে তারা কেন পরবর্তী আপডেট গুলো সাথে সাথে পেয়ে যাবে আপনার ভিডিও আপলোড করা মাত্রই।

ফেসবুক ভিডিও কনটেন্ট ক্রিয়েটর কিভাবে হবো এই প্রশ্নটা কিন্তু অনেকের থাকতে পারে যারা একদম নতুন ফেসবুক এ কাজ করতে চাচ্ছেন তাহলে এই প্রশ্নটির উত্তর হচ্ছে আপনাকে সর্ব প্রথমে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করতে হবে এবং এরপর এই পেজটিতে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি ফেসবুক কনটেন্ট ক্রিকেটার হয়ে যাবেন এবং আপনার ফেসবুক পেজ টিতে যখন মনিটাইজেশন পেয়ে যাবেন ফেসবুক থেকে তখন কিন্তু আপনি খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন।

আমরা কথাই বলে থাকি যে কষ্ট করলে কেষ্ট মেলে এরকম ভাবে আপনাকে অবশ্যই সর্বপ্রথম পরিশ্রম করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি পরবর্তী সময়ে ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে পারবেন শুধুমাত্র ফেসবুক নয় যে কোন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে যদি আপনি ইনকাম করতে চান এক্ষেত্রে কিন্তু আপনাকে সর্বপ্রথম অবশ্যই পরিশ্রম এবং ধৈর্য ধরতে হবে তাহলে কিন্তু পরবর্তী সময় সেখান থেকে খুব ভালো পরিমাণ সহ আরও বিভিন্ন ধরনের সুবিধা পেয়ে যাবেন।

একজন ফেসবুক ভিডিও ক্রিয়েটর কিন্তু শুধুমাত্র ফেসবুক থেকে ইনকাম করে না তার কিন্তু আরও বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে যুক্ত থাকে যেমন ধরুন ইউটিউব ইনস্টাগ্রাম টুইটারসহ বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়াতে তারা কিন্তু একটিভ থাকে তবে বর্তমান সময়ে আমাদের বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি যে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার হয় সেটি হচ্ছে ফেসবুক এখানে কিন্তু সকল ধরনের কাজ করা সম্ভব অর্থাৎ আপনি চাইলে যে কারো সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন বা আপনি জানেন যে কারো সাথে ভিডিও কনফারেন্স একথা বলতে পারবেন ইত্যাদি।

যদিও বিশ্বের অন্যতম একটি সোশ্যাল মিডিয়া হচ্ছে ইউটিউব কিন্তু মানুষ কিন্তু সব সময় ইউটিউবে একটিভ থাকে না মানুষ বেশিরভাগ সময়ই একটিভ থাকে ফেসবুকে বিশেষ করে আমাদের বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষ কিন্তু ফেসবুকে সবসময় একটিভ থাকে এবং ফেসবুকের সকল ধরনের কাজ করা সম্ভব অডিও কল থেকে শুরু করে অনলাইন ইনকাম পর্যন্ত কিন্তু ফেসবুক থেকে করা সম্ভব বর্তমান সময়ে আগের থেকে সবকিছু উন্নত হয়েছে সেটি হয়তো আমাদের সকলেরই জানা রয়েছে।

কিভাবে আপনি ভিডিও তৈরি করবেন এবং কিভাবে ফেসবুকে আপলোড করবেন এ বিষয়ে সম্পর্কে এখন আপনাদের সাথে আলোচনা করবো যদি আপনার আগ্রহ থাকে ফেসবুক থেকে ইনকাম করার জন্য অথবা আপনি যদি ফেসবুক কনটেন্ট ক্রিয়টর হওয়ার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই ভালোভাবে দেখে নিবেন কিভাবে কাজ করতে হবে আপনাকে ফেসবুকে ভিডিও তৈরি করার জন্য।

কিভাবে ফেসবুক পেজের ভিডিও তৈরী করব

ফেসবুকে দুই ধরনের ভিডিও আপলোড করতে পারেন যে দুজনে ভিডিও আপলোড করলে কখনো কিন্তু কপিরাইট ক্লেইম আসবে না অর্থাৎ আপনাকে অবশ্যই একটি কথা মনে রাখতে হবে যেন কোন প্রকার ভিডিও কনটেন্ট কপি না আসে আপনার ফেসবুক পেজ টিতে যদি কোন প্রকার স্টেক বা ভিডিও কপিরাইটিং আসে তাহলে কিন্তু আপনার ফেসবুক থেকে ইনকাম করা মুশকিল হয়ে যাবে এটি সবসময় মনে রাখবেন।

ফেসবুক কপিরাইট ফ্রি ভিডিও বানাবো কিভাবে
অবশ্য সব সময় আপনার ফেসবুক পেজটি রিফ্রেশ রাখতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি পরবর্তী সময়ে মনিটাইজেশন পেয়ে যাবেন খুব সহজে যদি আপনি কোন প্রকার কপি কনটেন্ট আপলোড করেন আপনার পেজটিতে এক্ষেত্রে কিন্তু আপনি কখনো মনিটাইজেশন পাবে না ফেসবুক থেকে ফেসবুকের অফিশিয়াল এনাউন্সমেন্ট রয়েছে এবং সেখানে কিন্তু খুব ভালো করে লেখা রয়েছে যে কোন প্রকার কপিরাইটিং ভিডিও আপলোড করলে কিন্তু আপনি মনিটাইজেশন পাবেন না তবে এখানে কিছু অবলম্বন করলে হয়তো বা কপি কনটেন্টে মনিটাইজেশন পেতে পারেন।

ফেসবুক পেজের জন্য অফলাইনে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন কিন্তু একদম সহজে এবং যারা বর্তমান সময়ে ফেসবুক কনটেন্ট ক্রিয়েটর আছে তাদের কিন্তু বেশিরভাগ ভিডিও অফলাইনে তৈরি করা হয় অর্থাৎ তারা কিন্তু সাধারন ভাবে ভিডিও গুলো তৈরি করে থাকে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বা নিজের বাসা থেকে ভিডিও গুলো তৈরি করে থাকে।

সাধারণ একটি মোবাইল ফোন দিয়ে কিন্তু আপনি অফলাইনে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন তবে এক্ষেত্রে যদি আপনি একটি মাইক্রোফোন ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ভয়েসটা খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন হবে অর্থাৎ অনেক সময় মোবাইল ফোনে দেখা যায়নি যে কিছুটা দূর হয়ে গেলে সেই ভয়েস গুলো কিন্তু খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করা যায় না এবং ভয়েস গুলো খুব সুন্দর কথা শোনা যায় না যার কারণে কিন্তু মানুষ কিছুটা বিরক্ত করবে সেই ভিডিওগুলো দেখা বন্ধ করে দেয়।

যদি পারেন তাহলে অবশ্যই একটি মাইক্রোফোন কিনে নিবেন সেটি মাধ্যমে কিন্তু দূরত্বের ভিডিও খুব সুন্দর ভাবে ভয়েজ গুলো অভার করা যাবে এবং ভয়েস গুলো সুন্দর ভাবে শোনা যাবে।

এবং অবশ্যই আপনার মোবাইলের ফোনের ক্যামেরা টি তে রয়েছে এটি সুন্দর হতে হবে এক্ষেত্রে চেষ্টা করবেন কিছু টা দামি মোবাইল ফোন ব্যবহার করার জন্য অর্থাৎ একদম নরমাল ব্যাপার না করে কিছুটা ভালো মানের মোবাইল ফোন ব্যবহার করার জন্য তাহলে কিন্তু খুব সুন্দর ক্যামেরা দিয়ে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন এবং আপনি দেখেন ফেসবুকে যারা সাধারন ভাবে ভিডিও তৈরি করে তাদের মোবাইল ফোনের ক্যামেরা গুলো কিন্তু খুবই সুন্দর যার কারণে ভিডিও গুলো খুব ক্লিয়ার আসে এবং কোন প্রকার ঝাপসা বা সমস্যা হয় না ভিডিও গুলো দেখতে।

ফেসবুকে ভিডিও থেকে ইনকাম করুন প্রতিদিন
অফলাইনে ভিডিও তৈরি করার জন্য অবশ্যই ভালো ক্যামেরা ব্যবহার করবেন এবং আপনি যদি ভয়েস কভারিং করেন এক্ষেত্রে কিন্তু খুব সুন্দর ভাবে ভয়েস গুলো দিতে হবে যেন খুব স্পষ্টভাবে বুঝা যায় যদি আপনার ভয়েস গুলো স্পষ্ট ভাবে বোঝা না যায় তাহলে কিন্তু এক্ষেত্রে মনিটাইজেশন পেতে কিছুটা সমস্যা হবে কেননা যে কোন সোশ্যাল মিডিয়াতে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য তাদের কমিউনিটি তে রয়েছে আপনি যদি ভয়েস ব্যবহার করেন তাহলে খুব সুন্দর ভাবে ভয়েস গুলো দিতে হবে যেনো মানুষ স্পষ্ট বুঝতে পারে আপনার ভয়েস গুলো।

এই বিষয়টি খুব ভালোভাবে লক্ষ্য রাখবেন যদি আপনি এই বিষয়টিতে ভালভাবে লক্ষ না রাখেন এবং পরবর্তী সময়ে যদি আপনার ভিডিও থাকা ভয়েস গুলো সুন্দর ভাবে বোঝা না যায় তাহলে কিন্তু মনিটাইজেশন পেতে কিছুটা সমস্যা হবে আপনার পেজ টির জন্য।

এবং আপনি যে ভিডিও গুলো তৈরি করবেন অবশ্যই খুব সুন্দর ভাবে এডিটিং করার চেষ্টা করবেন বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যেগুলো দ্বারা কিন্তু বর্তমান সময়ে খুব সুন্দর ভাবে ভিডিও এডিটিং করা যায় এবং আপনাদের ব্যাকগ্রাউন্ড কালার টা থাকবে বা ছবিগুলো থাকবে সেগুলো কিন্তু খুব সুন্দর ভাবে এডিট করে দিবেন কেননা ব্যাকগ্রাউন্ড এর জন্য কোন ভিডিও কোয়ালিটি খারাপ হতে পারে অবশ্যই ব্যাকগ্রাউন্ড খুব ভালোভাবে এডিট করে নিবেন।

ফেসবুক পেজের জন্য অনলাইনে ভিডিও তৈরি করতে পারেন কোন প্রকার সমস্যা হবে না অর্থাৎ অনলাইনে ভিডিও তৈরি করার বিশেষ কয়েকটি মাধ্যম রয়েছে অনলাইন ভিডিও সম্পর্কে সমস্ত বিষয় রয়েছে সেটি হচ্ছে আপনি যে ভিডিও গুলো তৈরি করবেন এই গুলো অবশ্যই অনলাইনে তৈরি কিন্তু হতে হবে যদিও এটি কোন কমিউনিটি না তারপরও আমি আপনাদেরকে বুঝিয়ে বলতেছি কিভাবে আপনি অনলাইনে ভিডিও তৈরি করবেন।

অনলাইন ভিডিও বলতে বুঝানো হয়েছে আপনার মোবাইলের স্ক্রিন রেকর্ডার দিয়ে যে ভিডিও গুলো তৈরি করবেন অর্থাৎ বিভিন্ন কাজের মাধ্যমে আপনি যদি তুলে ধরেন সেইগুলোকে বলা হয় অনলাইন ভিডিও যেগুলো মোবাইল ফোন বা অন্যান্য এলেক্ট্রনিক দিয়ে তৈরি করা হয়।

ধরুন আপনি একটি ভিডিও তৈরি করলেন কিভাবে ফেসবুক থেকে ইনকাম করা যায় এর জন্য কিন্তু আপনি একটি অনলাইন ভিডিও তৈরি করতে পারবেন এবং আপনি সম্পূর্ণ ভাবে দেখিয়ে দিবেন ভিডিওর মাধ্যমে যে কিভাবে ফেসবুক পেজ তৈরি করতে হয় কিভাবে ফেসবুক পেজ এ ভিডিও আপলোড করতে হয় এই বিষয় সর্ম্পকে এজন্য কিন্তু আপনি আপনার যে ডিভাইসটির হোসেনের কিন্তু স্ক্রিন রেকর্ড করবেন এবং সেখানে কিন্তু ভয়েজ দিবেন যেন মানুষ হওয়া যায় দেখে বুঝতে পারে এবং বিষয়টি সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পারে।

সেরকমভাবে আপনি চাইলে কিন্তু অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করতে পারেন এবং সেগুলো আপনার মোবাইল ফোন বা অন্য ডিভাইস এর যেকোনো একটি স্ক্রিন রেকর্ডার দিয়ে ভিডিও করে ফেসবুকে আপলোড করতে পারবেন এতে কিন্তু কোন প্রকার সমস্যা হবে না বা কপিরাইটিং আসবে না তবে এখানে কিছু নিয়ম-নীতি রয়েছে অবশ্যই আপনাকে মেনে তারপরে ভিডিওগুলো আপলোড করতে হবে তাহলে কোন প্রকার কপিরাইটিং বা কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

অনলাইনে অনেক ধরনের বিষয় রয়েছে যেগুলো আপনি চাইলে কিন্তু ভিডিও করে ফেসবুক পেজ সহ আরও বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়াতে আপলোড করতে পারে প্রথমত অবস্থায় যেকোনো ধরনের ভিডিও কিন্তু মানুষের কাছে সহজে পৌঁছাবে না যখন আপনি প্রতিনিয়ত আপনার ফেসবুক পেজ টিতে ভিডিও আপলোড করবেন তখন কিন্তু আপনার পেজটি আস্তে আস্তে মানুষের কাছে পরিচিত হচ্ছে চলবে এবং যদি আপনার ভিডিওগুলো তাদের কাছে ভালো লাগে তখন কিন্তু তারা নিয়মিত আপনার ভিডিওগুলো দেখবে এবং আপনার ভিডিও গুলো আপডেট পাওয়ার জন্য সব সময় আপনার পেজের সাথে থাকবে ফলো এবং লাইক দিয়ে।

ফেসবুকে বর্তমান সময়ে কিন্তু অফলাইন এবং অনলাইন দুটো এই বিষয়ে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ভিডিও তৈরি করার জন্য অনেকেই আছেন যারা বিভিন্ন ধরনের টিউটোরিয়াল ফেসবুকে আপলোড করে অর্থাৎ অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের কাজের টিউটোরিয়াল গুলো আপলোড করে থাকে এবং অনেকেই আছে যারা বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে গিয়ে ভিডিও তৈরি করে সেগুলো কিন্তু ফেসবুকে আপলোড করতেছে।

ধরুন আপনি একটি সুন্দর জায়গায় ঘুরতে গিয়েছেন সেখান থেকে সুন্দর মুহূর্ত ভিডিওগুলো তৈরি করবেন এবং সেগুলো আপনি ফেসবুক পেজ আপলোড করবেন এই ভিডিওগুলো কিন্তু আমি যা বর্তমান সমাজে খুব বেশি পরিমাণে ভাইরাল এবং মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছে ও মানুষ কিন্তু এই ভিডিওগুলো খুব বেশি পরিমাণে দেখতেছে যেটি আমি বেশ কয়েক মাস থেকে লক্ষ করতেছি।

বা আপনি কিন্তু ভিডিও ব্লগিং করতে পারেন অর্থাৎ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে গিয়ে ভিডিও তৈরি বা বিভিন্ন ধরনের হোটেলে গিয়ে সেখানকার বিষয়বস্তু গুলো তুলে ধরা যদিও এটি আপনার পার্সোনাল আপনি যেকোনো করতে পারেন কোন প্রকার সমস্যা নেই আপনার ইচ্ছামত শুধুমাত্র আমি আপনাদেরকে ধারণা দিচ্ছে কিভাবে আপনি ভিডিও তৈরি করবেন।

আশা করি বুঝে গিয়েছেন কিভাবে আপনি ফেসবুক পেজে ভিডিও তৈরি করবেন সেটি অনলাইনে হোক অথবা অফলাইনে দুই প্রকারের কিন্তু আপনি ভিডিও তৈরি করতে পারবেন ফেসবুক পেজের জন্য।

উভয় ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ড বিশেষ গুরুত্ব দেবেন কিসের জন্য ?আপনার প্রথম বিশেষ একটি গুরুত্ব দিতে হবে ব্যাকগ্রাউন্ড এর জন্য অর্থাৎ আপনি যদি একটি অফলাইন ভিডিও তৈরি করেন এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনি একটি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ব্যবহার করবেন কিন্তু আপনাকে এখানে গুরুত্ব দেওয়ার কারণ কি হচ্ছে অবশ্যই আপনার ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক কপিরাইট ফ্রি হতে হবে অর্থাৎ আপনি যে গানটা মিউজিক টি ব্যবহার করবেন ব্যাকগ্রাউন্ডে সেটি কিন্তু অবশ্যই কপিরাইট ফ্রি হতে হবে।

এই বিষয়টির উপর অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন কেননা আপনার কষ্টের ভিডিও গুলো যদি শুধুমাত্র ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক এর জন্য নষ্ট হয়ে যায় এক্ষেত্রে কিন্তু খুব দুঃখের বিষয় এবং খুব খারাপ লাগবে তখন আপনার কাছে আপনি যদি ইউটিউবে সার্চ করেন যে কিভাবে ফ্রি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ব্যবহার করবেন ফেসবুক পেজের জন্য তাহলে অনেক ভিডিও পেয়ে যাবেন সেখান থেকে কিন্তু দেখে নিতে পারেন কিভাবে আপনি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ব্যবহার করবেন তাহলে কিন্তু আপনার কোন প্রকার কপিরাইট ইস্যু আসবেনা মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য।

কিভাবে ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন চালু করব।

এখন আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে আপনার ফেসবুক পেজ টির জন্য মনিটাইজেশন আবেদন করবেন এবং মনিটাইজেশন আবেদন করার আগে আপনাকে কি প্রয়োজন হবে এই বিষয়গুলো নিয়ে অবশ্যই আপনার এই গুলো জানা দরকার কেননা আপনি যদি শুধুমাত্র ভিডিও তৈরি করেন এবং কয়েকদিন পর মনিটাইজেশন জন্য এপ্লাই করেন তাহলে কিন্তু হবে না।

অবশ্যই তাদের কিছু শর্ত বা নিয়ম-নীতি আপনাকে মেনে তারপর কিন্তু মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনার পেজটি তাদের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে যদি তাদের কাছে আপনার ফেসবুক পেজটি গ্রহণযোগ্য হয় এক্ষেত্রে কিন্তু আপনার পেজটিতে তারা মনিটাইজেশন চালু করে দিবে এবং পরবর্তী সময় থেকে কিন্তু আপনি ফেসবুক থেকে ইনকাম শুরু করতে পারবেন অফিশিয়াল ভাবে।

মনিটাইজেশন আবেদন করার জন্য আপনার দুটি শর্ত অবশ্যই মানতে হবে সেটি হচ্ছে watch টাইম এবং ফলোয়ার আপনাকে ফেসবুকের এই দুটি বিশেষ অর্থ অবশ্যই মানতে হবে মনিটাইজেশনের জন্য কেননা এ দুটি পূর্ণ না হলে কিন্তু আপনি মনিটাইজেশন আবেদন করতে পারবেন না অবশ্যই আপনাকে যদি আগে পূরণ করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি মনিটাইজেশন এর জন্য আপনার ফেসবুকে প্রস্তুত করে আবেদন করতে পারবেন।

যদি আপনার ভিডিও কোয়ালিটি গুলো খুব সুন্দর হয় এবং কোন প্রকার সমস্যা না হয় তাহলে কিন্তু খুব অল্প দিনেই আপনার এই শর্তগুলো পূরণ হয়ে যাবে তো নিচে আমি দেখিয়ে দিচ্ছি এই দুটি শর্ত যা আপনাকে অবশ্যই মানতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি মনিটাইজেশনের জন্য ফেসবুকের কাছে আবেদন করতে পারবেন।

ফেসবুক পেজের জন্য 10 হাজার ফলোয়ার সংরক্ষণ করতে হবে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য অর্থাৎ আপনার ফেসবুক পেজ টিতে অবশ্যই 10 হাজার ফলোয়ার থাকতে হবে সর্বনিম্ন যদিও আপনার ভিডিও গুলো যদি খুব ভালো মানের হয় তাহলে 10 হাজার ফলোয়ার খুব অল্প দিনেই হয়ে যাবে ফেসবুকে কিন্তু ফলোয়ার বাড়াতে খুব সময় লাগে না যদি আপনার ফেসবুক পেইজটি একটিভ থাকে তাহলে অবশ্যই কিন্তু আপনার ফেসবুক পেজে একটিভ থাকা লাগবে তাহলে কিন্তু আপনি মনিটাইজেশনের জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবেন।

এবং যদি আপনি একটি ভিডিও আপলোড করে আর দুই তিন মাস ভিডিও আপলোড না করে এইভাবে ভিডিও আপলোড করলে কিন্তু আপনি কোন ভাবে মনিটাইজেশন পাবেন না অবশ্যই আপনাকে ফেসবুকে একটিভ থাকতে হবে সব সময় এবং নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে হবে ফেসবুক পেজে তাহলে কিন্তু আপনার সহজ হয়ে যাবে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য।

তো যেভাবেই হোক আপনাকে অবশ্যই 10 হাজার ফলোয়ার সংরক্ষণ করতে হবে আপনার ফেসবুক পেজের জন্য তাহলে কিন্তু একটি স্টেপ পূরণ হয়ে যাবে এরপর আরও একটি স্টেপ রয়েছে যেটি অবশ্যই আপনাকে পূরণ করতে হবে।

৩ মাসের ভিতরে 60,000 মিনিট ভিডিও দেখা সংরক্ষনকরতে হবে অর্থাৎ আপনি যে ভিডিওগুলো আপলোড করবেন এখান থেকে তিন মাসের ভিতরে আপনার পাবলিক ভিডিও দেখার ৬০ হাজার মিনিট লাগবে যদি আপনার ভিডিও কোয়ালিটি গুলো খুব ভালো হয় এবং মানুষের কাছে পছন্দনীয় হয়ে ওঠে তাহলে কিন্তু খুব অল্প দিনেই আপনি স্টেপ পূরণ করতে পারবেন খুব সহজে।

অবশ্যই আপনার ভিডিওগুলো কিছুটা বড় হতে হবে একদম ছোট ছোট ভিডিও দিয়ে হবে না কেননা সেগুলো কিন্তু ফেসবুক খুব বেশী একটি ভ্যালু দেয়না অবশ্যই আপনার ভিডিওগুলো কিছুটা দৈর্ঘ্য বেশি হতে হবে যেমন ধরুন 3 থেকে 5 মিনিট এই রকম চেষ্টা করবেন এবং ভিডিও আপলোড করলে তো আরো ভালো তাহলে খুব সহজেই কিন্তু আপনার এই শর্ত পূরণ হয়ে যাবে খুব অল্প দিনেই।

সব সময় একটি কথা মনে রাখবেন ভুল করেও যেন আপনার কোন ভিডিও কপিরাইটিং প্লেন না আসে তাহলে কিন্তু আপনি ফেসবুক থেকে মনিটাইজেশন নিতে পারবেন না যদি আপনার ভিডিওগুলো একদম সত্যি কারো হয় বা আপনার নিজের তৈরি হয় এক্ষেত্রে কিন্তু কপিরাইটিং আসবেনা আর যদি আপনি অন্য কারো ভিডিও আপনার পেজ আপলোড করেন তাহলে কিন্তু এক্ষেত্রে কপিরাইটিং আসতে পারে।

অবশ্যই আগে দেখে নিবেন যে কোন মিউজিকটি ফেসবুকের ফ্রী রাইটিং রয়েছে অর্থাৎ সেটি ব্যবহার করলে কোন প্রকার কপিরাইটিং আসবে না এরকম একটি মিউজিক ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক হিসেবে ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন তাহলে এক্ষেত্রে কিন্তু

কোন প্রকার কপিরাইটিং আসবেনা খুব সুন্দর ভাবে কিন্তু সেই মিউজিক গুলো ব্যবহার করতে পারবেন এছাড়াও যদি কখনো অন্য কোন ভিডিও ক্লিপ আপনার ভিডিওতে যুক্ত করেন এক্ষেত্রে কিন্তু খুব সুন্দর ভাবে এডিট করবেন তাহলে আমার মনে হয় কোন প্রকার সমস্যা হবে না আর যদি আপনি সরাসরি ভাবে ব্যবহার করেন এক্ষেত্রে কিন্তু কপিরাইটিং আসার সম্ভাবনা রয়েছে অবশ্যই খুব ভালোভাবে এডিট করে তারপর ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

তো মনিটাইজেশন পেয়ে গেলে কিন্তু আপনি তার পরবর্তী সময় থেকে ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করতে পারবেন এবং সে টাকা কিন্তু আপনি ব্যাংকের মাধ্যমে নিতে পারবে যদিও প্রথমত অবস্থায় আপনার কিছুটা কঠিন হবে আপনার পেজটিকে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য অবশ্যই চেষ্টা করতে হবে তাহলেই সফলতা আসতে পারে।

তো এখন আমরা কথা বলবো ফেসবুক পেজ থেকে আরও যে বিভিন্ন ভাবে ইনকাম করা যায় সেই বিষয়গুলো নিয়ে অবশ্যই এই বিষয়গুলো দেখে নিবেন এইগুলো কিন্তু অফিশিয়াল ইনকাম নয় অর্থাৎ এগুলো কিন্তু ফেসবুকের অফিসের ইনকাম করেছে সেগুলোর আওতাধীন পরেনা এগুলো হচ্ছে আপনার এক্সট্রা ইনকাম যদি আপনার মনিটাইজেশন থাকে তারপরও কিন্তু আপনি এই ভাবে ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজে।

অন্যের পোস্ট প্রমোট করে ইনকাম ফেসবুক পেজ থেকে।

তো এখন আপনাদের সাথে ছোট ছোট কয়েকটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো এই গুলো খুব বড় বিষয় নয় যদি আপনি চান তাহলে কিন্তু এইভাবে ও ইনকাম করতে পারবেন এবং আমি পুরোপুরি কিন্তু আপনাদের সাথে শেয়ার করব কিভাবে আপনি ছোট ছোট বিষয় গুলো থেকে ইনকাম করতে পারবেন বা ছোট ছোট কাজগুলো থেকে সহজে ইনকাম করতে পারবেন আপনার পকেট খরচ চালানোর জন্য।

আপনি চাইলে কিন্তু অন্যের পোস্ট প্রমোট করে ইনকাম করতে পারবেন বিষয়টি হয়তো বুঝতেছেন না আমি আপনাকে সহজে বুঝিয়ে দিচ্ছি অন্যের পোস্ট বলতে আপনি অন্য কোন গ্রুপ বা ফেসবুক পেজের পোষ্ট আপনার ফেসবুক পেজে করে ইনকাম করতে পারবেন এর জন্য আপনাকে যা করতে হবে প্রথমে আপনি আপনার ফেসবুক পেজ টির স্টোরিতে লিখে দিবেন যদি কেউ পোস্ট প্রমোট করাতে চান বা পেজ প্রমোট করাতে চান এক্ষেত্রে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

যদি আপনি এই ভাবে লিখে দেন তাহলে দেখতে পারবেন যে অনেকেই আপনার পেজে তার পেজটি প্রমোট করাতে আগ্রহী হবে এবং অবশ্যই আপনার পেজে কিন্তু অধিক পরিমাণে ফলোয়ার থাকতে হবে কেননা ছোট কোন পেজ থেকে কিন্তু মানুষ তাদের পেজগুলো প্রমোট করাবে না অবশ্যই আপনার পেজ টি বড় হতে হবে অর্থাৎ ২/৩ লক্ষ ফলোয়ার থাকতে হবে তাহলে কিন্তু মানুষ আপনার পেজের মাধ্যমে তাদের পেজ বা গ্রুপ প্রমোট করাবে।

আপনাকে কিন্তু অবশ্যই আগে একটি পোস্ট বা স্টরি দিতে হবে অনেকেই হয়তো মনে করে যে আপনি হয়তো বা অন্য কারো পোস্ট শেয়ার করেন না এজন্য কিন্তু তারা আপনাকে বলোনা অবশ্যই আপনাকে এর জন্য আগে আপনার পেজটিতে পোস্ট অথবা স্টরি দিতে হবে তাহলে কিন্তু সেগুলো মানুষ দেখতে পাবে এবং কারো যদি প্রয়োজন হয়ে থাকে তাহলে সে আপনার সাথে যোগাযোগ করবে এবং প্রতি পোস্ট শেয়ার এর মাধ্যমে আপনি কিন্তু ইনকাম করতে পারবেন খুব সহজেই তাদের থেকে।

কিভাবে ফেসবুকে প্রতিদিন 500 আয় করা যায়

এখান থেকে ইনকামের কিন্তু একটি সরকার রয়েছে সেটি হচ্ছে আপনি যদি একদিন কারো একটি পোষ্ট আপনার ফেসবুক পেজ টিতে শেয়ার করেন বা পাবলিসিটি করেন এক্ষেত্রে কিন্তু সেদিন বা তার পরবর্তী 24 ঘন্টা আপনার পেজে কোন প্রকার পোস্ট করা যাবে না তাহলে কিন্তু মানুষ সে প্রমোট করা পোষ্টটি খুব ভালোভাবে দেখতে পারবে না সেজন্য অবশ্যই আপনি আগে বায়ারের সাথে কথা বলে নিবেন অর্থাৎ যে আপনার মাধ্যমে তার পেজটি প্রমোট করাতে চাচ্ছে তার সাথে কথা বলে নিবেন এক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো হবে।

অন্যের প্রোডাক্ট প্রমোট করে ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করুন

খুব সহজে ইনকাম করার জন্য আরও একটি সুন্দর উপায় রয়েছে সেটি হচ্ছে অন্যের প্রোডাক্ট বা বস্তু প্রমোট করে ইনকাম যেটি হয়তো আপনি বিভিন্ন ধরনের ভিডিওর মধ্যে দেখতে পারেন যে স্পন্সর হিসেবে মানুষ কিন্তু বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট বা বস্তু ভিডিও দিয়ে থাকে সেগুলো মানুষকে জানানোর জন্য বা দেখানোর জন্য এরকমভাবে ইনকাম করা যাবে খুব সহজে যা বর্তমানে একদম প্রচলিত রয়েছে।

আপনি যদি একটি বিষয় লক্ষ্য করেন সেটি হচ্ছে বড় বড় সেলিব্রিটি গুলো রয়েছে অথবা যে বড় বড় ফেসবুক পেজ গুলো রয়েছে সেখানে দেখতে পারবেন মাঝে মধ্যে বিভিন্ন প্রকার প্রোডাক্ট এর ছবি প্রকাশ করা হয় বা বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট জাতীয় বস্তু পাবলিসিটি করা হয় যদিও সেগুলো কিন্তু তাদের নিজের নয় সেইগুলোকে অন্যরা প্রমোট করে।

অথাৎ আমার একটি ধরুন কোম্পানি রয়েছে এবং আপনার একটি বড় ফেসবুক পেজ হয়েছে তো আমার এই কোম্পানির প্রোডাক্ট গুলো আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে মানুষকে জানিয়ে দিতে চাচ্ছি মানুষের যদি পছন্দ হয় তাহলে সে আমার প্রোডাক্ট গুলো ক্রয় করবে আপনার পেজে দেখে এবং বড় বড় সেলিব্রিটির পেজে আপনারা যখন করেন তাহলে মাঝেমধ্যে দেখতে পারবেন মোবাইল ফোনের বা আরও বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্টের ছবি আপলোড করা রয়েছে সেগুলো কিন্তু তারা স্পন্সার বা প্রমোট করে দেয়।

এইভাবে কিন্তু আপনার ইনকাম করতে পারবেন যদি আপনার ফেসবুক পেজে ফলোয়ার অনেক থাকে বা আপনি যে ফেসবুক পেজে ভিডিও তৈরি করে সেই ভিডিও ভিউ শুধু অনেক বেশি পরিমাণে হয় তাহলে কিন্তু প্রতিটি ভিডিওতে আপনি এরকম ভাবে ইনকাম করতে পারবেন এবং আপনার ভিডিও এর উপর নির্ভর করবে এরকম ইনকাম করা টি কেননা যখন মানুষ দেখবে আপনার ভিডিও খুব বেশি বিব্রত তখন সেই মানুষটাই পেজে আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে তাদের প্রোডাক্ট মানুষকে দেখানোর জন্য বা জানানোর জন্য আরও বিভিন্ন ধরনের কাজের জন্য কিন্তু মানুষ প্রোডাক্ট প্রমোট করে থাকে।

এখন বর্তমান সময়ে ইউটিউবসহ বিভিন্ন ধরনের যে সোশ্যাল মিডিয়া গুলো রয়েছে সেখানে যারা বড় বড় অ্যাকাউন্টের মালিক রয়েছে তারা কিন্তু প্রতিটি ভিডিও থেকে ইনকাম করে এক্সট্রা ভাবে অর্থাৎ বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট প্রমোট করে কিন্তু তারা এক্সট্রা ইনকাম করতে পারে যদি আপনি বড় একটি ইউটিউব চ্যানেল লক্ষ্য করেন তাহলে অবশ্যই দেখতে পারবেন তারা কমেন্ট বক্সে অথবা ডেসক্রিপশন বক্সে লিঙ্ক করে দিয়েছে সেটি কিন্তু তাদের প্রমোশন লিংক অর্থাৎ লিংক দেওয়ার বিনিময়ে তারা কিন্তু অর্থ নিয়েছে।

এইরকম ভাবে যদি আপনার বউও কি ফেসবুক পেজ থাকে তাহলে কিন্তু আপনি এইভাবে ইনকাম করতে পারবেন অবশ্যই আপনার বড় ফেসবুক পেজ প্রয়োজন হবে তাহলে মানুষ আপনাকে এসএমএস দেবে তাদের প্রোডাক্ট গুলো প্রমট করানোর জন্য আশা করি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে অন্যের প্রমোট করে ইনকাম করবেন।

Affiliate Marketing থেকে ফেসবুক থেকে টাকা আয়/ইনকাম

এটা কিন্তু খুব সহজ একটি মাধ্যম শুধুমাত্র ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করতে পারবেন এটি নয় এছাড়া কিন্তু আপনি যেকোন ভাবে ইনকাম করতে পারবেন এফিলিয়েট মার্কেটিং করে এটি মূলত হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট কোম্পানি থেকে আপনি তাদের প্রোডাক্ট গুলো নিয়ে আপনার ফেসবুক পেজ বা গ্রুপ পোস্ট করে যদি বিক্রি করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনি সেখান থেকে একটি কমিশন পাবেন।

বর্তমানে বাংলাদেশের স্টুডেন্টদের জন্য খুব সুন্দর সুন্দর কিছু এফিলিয়েট মার্কেটিং রয়েছে যেগুলো করে কিন্তু আপনি আপনার নিজের পকেট খরচের টাকা ইনকাম করতে পারবেন অনলাইন থেকে যদি আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকে এবং সেখানে যদি প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর আসে তাহলে কিন্তু আপনি আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েটিং মার্কেটিং করতে পারবেন একদম সহজে এবং এখানে কিন্তু পুরোপুরি ইনকাম নির্ভর করবে আপনার সেল এর উপরে।


How do I start my affiliate marketing

যদি আপনি একদিনে 10 টি প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারেন তাহলে আপনি 10 টি প্রোডাক্ট থেকে কমিশন পাবেন এবং প্রতিটি প্রোডাক্ট থেকে কত পারসেন্ট কমিশন পাবেন সেটি কিন্তু সেই প্রোডাক্ট ব্যবহার হয়েছে আপনি যেখান থেকে নিয়ে প্রোডাক্টগুলো সেল করবেন অবশ্যই সেখানে ভালো করে দেখে নিবেন সেখানে কিন্তু খুব ভালোভাবে দেখিয়ে দেওয়া রয়েছে যে এই প্রোডাক্ট বিক্রি করলে আপনি কত টাকা কমিশন পাবেন।

বর্তমান সময়ে সাধারণ ভাবে যদি আপনি ইনকাম করতে চান এফিলিয়েট মার্কেটিং করে তাহলে এর জন্য রয়েছে টেন মিনিট স্কুল 10minuteschool সহ আরো বিভিন্ন ধরনের এফিলিয়েট মার্কেটিং যদি আপনি প্রোডাক্ট বিক্রি করতে চান এক্ষেত্রে দেখতে পারেন দারাজ অ্যামাজন আরও বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট ওয়েবসাইট গুলো বেশ বড় বড় কোম্পানি তাদের প্রোডাক্ট গুলো নিয়ে কিন্তু আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারবেন এবং এখানে আপনার সম্পূর্ণ ইনকাম করবে আপনি কতটা প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারতেছেন।

নিজের পণ্য / প্রডাক্ট বা ব্যাবসা কি ইনকাম আরও উন্নত করে তুলুন।

ধরুন আপনার একটি ফেসবুক পেজ রয়েছে যেখানে অনেক পরিমাণে ফলোয়ার রয়েছে এবং পেজটি একদম অ্যাক্টিভ কোন পোস্ট করার সাথে সাথে খুব ভালো ভিউ পাওয়া যায় এরকম একটি পেজ যদি আপনার থাকে তাহলে কিন্তু আপনি নিজে বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা বা প্রোডাক্ট সেল এর কাজ করতে পারেন যেমনটা এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মত কিন্তু আপনার যদি সবকিছু খুব ভালোমতো থাকে এক্ষেত্রে কিন্তু আপনি নিজে সেই গুলো বিক্রি করতে পারেন মালিকানাধীন ভাবে।

ধরুন আপনার একটি দোকান রয়েছে এবং আপনি চাইলে কিন্তু পাইকারি দরে অনলাইনে আপনার প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করতে পারবেন এর জন্য কুরিয়ার সার্ভিস ব্যবহার করতে পারেন প্রোডাক্টগুলো মানুষকে দেওয়ার জন্য আরও বিভিন্ন উপায়ে কিন্তু আপনি প্রোডাক্টগুলো মানুষকে দেওয়ার জন্য ব্যবস্থা নিতে পারেন।

যদি আপনার ফেসবুক পেইজ বা ফেসবুক গ্রুপ অথবা ওয়েবসাইট থাকে এবং সেখানে প্রচুর মানুষ ভিউ করে এক্ষেত্রে কিন্তু চাইলে আপনি এরকম একটি ব্যবসা করতে পারেন লাভজনক ব্যবসা হবে সম্পূর্ণ কাজ আপনি বাড়িতে বসেই করতে পারবেন আপনাকে বাহিরে কোথাও যেতে হবে না শুধুমাত্র পণ্যগুলো গ্রাহক দেওয়ার জন্য কুরিয়ার সার্ভিস বি বিভিন্ন ধরনের মাধ্যম জানিয়েছে সেগুলো তো যোগাযোগ রাখবেন সবসময়।

এছাড়াও আরও একটি ভালো উপায় রয়েছে নিজের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গুলো প্রমোশন করার জন্য ধরুন আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে চ্যানেলটিতে খুব বেশি ভিউ হচ্ছে না এক্ষেত্রে কিন্তু আপনি খুব সহজে আপনার চ্যানেলটিকে ভিউ বাড়াতে পারবেন এবং সাবস্ক্রাইবার বাড়াতে পারবেন খুব সহজে যদি আপনার একটি ফেসবুক পেজ থাকে এক্ষেত্রে আপনাকে যা যা করতে হবে আমি আপনাকে বলে দিচ্ছি চেষ্টা করে দেখতে পারেন আশা করি এখান থেকে আপনার মোটামুটি খুব ভালো লাভ হবে।

যদি আপনার ফেসবুক পেজ টিতে বা গ্রুপটিতে অনেক মানুষ সবসময় একটিভ থাকে এক্ষেত্রে ধরুন আপনি একটি পোস্ট করলেন আপনার পেইজে এবং ওপরে আপনাদের একটি ইউটিউব ভিডিও লিংক দিয়ে দিবেন এবং সেখানে লিখে দিবেন যে আমাদের নতুন চ্যানেল বা আপনার মন মত করে কিছু লিখে দিবেন যেন মানুষ এই লিঙ্কে ক্লিক করে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি তে ঘুরে আসে এক্ষেত্রে কিন্তু আপনি প্রতিদিন যদি এভাবে প্রতি সপ্তাহে দুই থেকে তিনটি ফেসবুকে শেয়ার করেন তাহলে কিন্তু ফেসবুক থেকে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভিউয়ার্স যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এছাড়াও অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া থেকে কিন্তু আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিউ নিতে পারবেন সেজন্য অবশ্যই যে সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনি সবসময় একটিভ থাকেন সেখানে আপনার ইউটিউব চ্যানেল লিংকটি দিয়ে দিবেন যেমন ধরুন টিকটক যেখানে খুব অল্প সময়ে কিন্তু জনপ্রিয়তা পাওয়া যায় আপনার যদি একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি আপনার টিকটক আইডি ইউটিউব তে অ্যাড করে নেবেন।

শেষ কথা

আশাকরি আমাদের আজকের পোস্টটি আপনার কাছে ভালো লেগেছে যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন এবং কোন কিছু যদি বুঝতে সমস্যা হয়ে থাকে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন আমরা সমাধান দেয়ার চেষ্টা করব এছাড়া আরও বিভিন্ন ধরনের ইনকাম সম্পর্কিত পোস্ট বা আরও বিভিন্ন ধরনের টেক রিলেটেড পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি প্রতিদিন ভিজিট করুন নতুন কিছু জানার জন্য এবং নতুন কিছু শিখার জন্য।

সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.