মেয়েদের জন্য অনলাইন জব ঘরে বসে ইনকাম৷ বিস্তারিত দেখুন

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব ঘরে বসে ইনকাম ‌ নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হলাম খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে আছে আপনাদের সাথে আলোচনা করবো আশা করি এখন একজন মেয়ে চাইলে অনলাইনে ঘরে বসে ইনকাম করতে পারবে খুব সহজেই অনেকগুলো উপায় রয়েছে কিছু উপায় আপনাদের সাথে আজকে তুলে ধরার চেষ্টা করব।

যদি আপনি একজন মেয়ে হয়ে থাকেন যেকোনো বয়সের মেয়ে কিন্তু অনলাইনে কাজ করতে পারবেন তবে এখানে কিছু ধাপ রয়েছে যে ধাপগুলো আপনাদের মাঝে তুলে ধরার চেষ্টা করব আশা করি আপনি যদি অনলাইনে ইনকাম করতে বা আপনি যদি অনলাইনে ঘরে বসে ইনকাম করার জন্য চিন্তা-ভাবনা করে থাকেন আশা করব এই পোস্টটি পড়ার পর আপনার অনলাইন ইনকাম সাম্প্রতিক সকল সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব ঘরে বসে ইনকাম।

কথাটি বলার কারণ হচ্ছে সাধারণত একজন ছেলে খুব সহজে অনলাইনে কাজ করতে পারে বা অফলাইনে কাজ করতে পারে কিন্তু একজন মেয়ে কিন্তু সব জায়গায় কাজ করতে পারে না অনেক মেয়ে আছে যারা অনলাইনে কাজ করতে আগ্রহী কিন্তু তাদের মনে হয় শুধু মাত্র ছেলেদের জন্য সম্ভব অনলাইন কাজটি এ ধারণাটি একদম ভুল।

এছাড়াও মেয়েদের জন্য যে কাজগুলো রয়েছে চাইলে এই কাজগুলো ছেলেরাও করতে পারবে কোন প্রকার সমস্যা নেই তবে মেয়েদের কাজগুলি কিছুটা ডিফারেন্ট অর্থাৎ অন্যরকম হবে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে সাধারণভাবে উদাহরণ দেই তাহলে একজন ছেলে খুব সহজে যেকোনো জায়গায় গিয়ে ভিডিও তৈরি করতে পারবে যেকোনো ধরনের ভিডিও ধারণ করতে পারবে সাধারণত আমরা দেখতে পারি ব্লগ ভিডিও যেগুলো ফেসবুক পেজ অথবা বাংলাদেশে ইউটিউবাররা রয়েছে যারা সাধারন ভিডিও ধারণ করে থাকে ক্যামেরা দিয়ে।

এবং তারা কিন্তু ঘরে বসে ইনকাম করে প্রতিমাসে কিন্তু একজন মেয়ে সব জায়গায় গিয়ে ভিডিও ধারণ করতে পারবে না একজন মেয়ে অনলাইনে কাজ করার জন্য সবচেয়ে ভালো হবে সে যদি ঘরে বসে সব কাজগুলি করতে পারে এটি তার জন্য সবচেয়ে ভালো হবে বাহিরে জন্য না যেতে হয়।

অনেক কাজ রয়েছে যে কাজগুলি করে একজন মেয়ে প্রতিমাসে অনেক বেশি পরিমাণে ইনকাম করতে পারবে শুধুমাত্র ঘরে বসেই আপনাকে বাইরে যেতে হবে না ঘরে বসেই আপনি প্রতি মাসে 15 থেকে 20 হাজার টাকা খুব সহজে ইনকাম করতে পারবেন বিশেষ কিছু সেক্টরের সেক্টর গুলো আপনি যদি বেছে নেন এক্ষেত্রে আরও দ্রুত সময়ে সফলতা অর্জন করতে পারবেন অনলাইন থেকে।

ঘরে বসে মেয়েদের জন্য অনলাইন জব এটি কিন্তু সরকারি হবে না অর্থাৎ সরকারি জব যদি আপনি করতে চান এক্ষেত্রে অবশ্য আপনাকে বাহিরে যেতে হবে আর যদি আপনি ঘরে বসে কোন প্রকার বাইরে না গিয়ে কাজ করতে চান এ ক্ষেত্রে অনলাইনে কিছু সেক্টর রয়েছে সাধারণ কিছু সেক্টর রয়েছে সেগুলোতে কাজ করে আপনি প্রতিমাসে খুব ভালো পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন।

তাহলে চলুন সেক্টর গুলো নিয়ে আপনাদের সাথে এখন বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা যাক এবং কোন সেক্টরে কিভাবে কাজ করতে হবে সেই বিষয়গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করব যেন আপনি খুব দ্রুত সময়ে সেগুলোতে কাজ করতে পারেন তাহলে চলুন বিস্তারিত দেখি নেই।

ঘরে বসে মেয়েদের জন্য অনলাইনে কাজ – ভিডিও ব্লগিং

এই কাজগুলি চাইলে একজন ছেলেও করতে পারবে কিন্তু এখানে ভিন্নতা রয়েছে একজন মেয়ে বাহিরে গিয়ে ভিডিও ধারন করতে পারবে না সেটি যেকোনো ধরনের ভিডিও আপনারা কেন একজন ছেলে বাইরে গিয়ে যেকোনো স্থানে ভিডিও ধারণ করতে পারবে ক্যামেরা দিয়ে তো একজন মেয়ে চাইলেও কিন্তু ভিডিও ব্লগিং করে ইনকাম করতে পারবে খুব সহজেই এর জন্য সেরা একটি উপায় হচ্ছে ভিডিও ব্লগিং।

যেটির মাধ্যমে চাইলে খুব সহজভাবেই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন কেননা ভিডিও ধারণ করতে কিন্তু আপনাকে বাহিরে যেতে হবেনা আপনি ঘরে বসেই ভিডিও ধারণ করতে পারবেন তো ঘরে বসে আপনি অনেক কয়েক ধরনের ভিডিও ধারণ করতে পারেন সর্বপ্রথম আপনার সাথে শেয়ার করব সেটি হচ্ছে ফুড ভিডিও ব্লগিং আপনি চাইলে ঘরে বসেই সাধারণ একটি মোবাইল ফোন দিয়ে ফুড ব্লগিং ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

বিষয়টি আমি আপনাকে সহজে বুঝিয়ে বলতেছি আপনি যদি ভাল রান্না করতে পারেন এবং সকল যদি আপনি রান্না করতে পারেন এ ক্ষেত্রে কিন্তু এই গুলো দিয়ে আপনি ভিডিও তৈরি করতে পারবেন বাংলাদেশের অনেক নারী রয়েছে বা মেয়ে রয়েছে যারা ভিডিও ব্লগিং করে ফুট ব্লগিং করে প্রতিমাসে লক্ষাধিক টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতেছে।

প্রথমত অবস্থায় আপনার কাছে কিছুটা হাস্যকর বা লজ্জাজনক মনে হবে কেননা প্রথম কাজটি যে কোন কাজ হোক না কেন আমাদের জন্য করাটা কিছুটা মুশকিল হয়ে যায় আপনি কি ভিডিও ধারণ করে ইউটিউব ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম আরও বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে ইনকাম করতে পারবেন সেই গুলো মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে আপনি যদি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করেন এক্ষেত্রে গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

মেয়েদের জন্য ঘরে বসে ইনকাম করা সেরা একটি উপায় হচ্ছে ‌এটি ফুড ব্লগিং ভিডিও অর্থাৎ খাদ্য রিলিটিড ভিডিওগুলি ‌ আপনি যদি ইউটিউবে সার্চ করেন তাহলে দেখতে পারবেন অনেক ধরনের ভিডিও আসবে এবং সেই ভিডিও গুলো তো অনেক পরিমাণে ভিউজ রয়েছে কেননা এই ভিডিওগুলো অনেক মানুষ দেখে যার কারণে খুব দ্রুত সময়ে ভিডিওগুলো ভিউজ অনেক বেশি পরিমাণে বেড়ে যায়।

আপনি খুব সহজেই ভিডিও ধারণ করতে পারবেন একটি মোবাইল ফোন দিয়ে অবশ্যই আপনাকে আগে এইগুলো জানতে হবে কোন সবজি কিভাবে রান্না করতে হয় অর্থাৎ কিভাবে ভিডিওটি তৈরি করলে মানুষের কাছে ভালো লাগবে এবং মানুষ আপনার ভিডিওগুলো দেখবে এর জন্য আপনাকে অবশ্যই কোয়ালিটি ভিডিও তৈরি করতে হবে চাইলে আপনি মোবাইল ফোন দিয়ে ভিডিও ধারণ করতে পারেন অথবা একটি ছোট ক্যামেরা কিনা সেটি দিয়ে ভিডিও ধারণ করতে পারেন।

ভিডিও গুলো খুব ভালোভাবে ধারণ করবেন এবং পরবর্তী সময়ে খুব ভালোভাবে এডিট করে সেইগুলো সোশ্যাল মিডিয়াতে আপলোড করে দিবেন যেমন ইউটিউব ফেসবুক আপনি কিন্তু ফেসবুক পেজে আপলোড করবেন অবশ্যই লোগো চেঞ্জ করে আপলোড করবেন অথবা আপনার যদি ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজের নাম একই হয় এক্ষেত্রে কোন প্রকার সমস্যা নেই চেষ্টা করবেন ফেসবুক, ইউটিউব ,ইনস্টাগ্রাম , আরো কি ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া রয়েছে সব সোশ্যাল মিডিয়াতে একই নাম ব্যাবহার করার।

এভাবে আস্তে আস্তে যখন আপনি ভিডিওগুলো আপলোড করবেন এক সময় দেখতে পারবেন আপনার ভিডিওতে খুব ভালো পরিমাণে যে হচ্ছে তখন কিন্তু আপনি সেই সোশ্যাল মিডিয়ায় গুলোতে আপনার ইনকাম এর জন্য মনিটাইজেশন আবেদন করতে পারেন যদি আপনার ভিডিওগুলি সবকিছু ঠিকঠাক ভাবে থাকে এক্ষেত্রে আশা করি আপনি খুব সহজে মনিটাইজেশন পেয়ে যাবেন এবং তার পরবর্তী সময় দেখে আপনাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হবে না খুব সহজে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন ভিডিওগুলি মাধ্যমে।

এই বিষয়ে যদি আপনারা আরো কোন প্রকার প্রশ্ন থাকে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করব প্রশ্নটির উত্তর দেওয়ার জন্য তো এখন আমরা দেখব এর পরের ধাপ।

মেয়েদের জন্য ডিজাইন করে অনলাইনে ঘরে বসে ইনকাম।

দক্ষতার মধ্যে দিয়ে আপনাকে এই কাজটি করতে হবে যদি আপনি শিক্ষিত হয়ে থাকেন অর্থাৎ যদি আপনি ইংরেজি ভাষা গুলো খুব সহজে বুঝতে পারেন বা এর অর্থ অনুবাদগুলি ভালোভাবে বুঝতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনি ডিজাইনের মাধ্যমে অনেক বেশি পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন এই কাজটি কিন্তু একজন নারী ও পুরুষ দুজনই করতে পারবে তবে অনেকেই হয়তো মনে করেন নারীদের জন্য এ কাজটি নয় | একজন নারী চাইলে এই কাজটি করতে পারবে খুব সহজে এবং খুব সুন্দর ভাবে।

এর জন্য আপনার কিছুটা দক্ষতা প্রয়োজন হবে এ কাজটি আপনি তাড়াহুড়া করে করতে যাবেন না অবশ্য কিছু সময় নিয়ে এই কাজটি করার চেষ্টা করবেন কেননা এটি একদম তাড়াহুড়া করলে আপনি কোনোভাবেই সেই কাজটি সম্পন্ন করতে পারবেন না খুব আস্তে আস্তে আপনাকে কাজগুলো করতে হবে প্রথমত অবস্থা আপনার কিছু সময় লাগবে এই কাজটি শিখার জন্য মিনিমাম চেষ্টা করবেন ছয় মাসে কাজটি শুধুমাত্র শেখার জন্য পারলে এর ফাঁকে কাজগুলি মানুষের সামনে প্রদর্শন করার চেষ্টা করবেন বা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন।

ঘরে বসে মেয়েদের জন্য ইনকাম তার মধ্যে অন্যতম একটি উপায় হচ্ছে ডিজাইনের কাজ আপনি কিন্তু বিভিন্ন ধরনের ডিজাইনের কাজ করে অনলাইন থেকে উপার্জন করতে পারবেন বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন রয়েছে যেমন ধরুন সাধারন একটি ড্রেসের ডিজাইন গেঞ্জি, থ্রি-পিস, পাঞ্জাবি, আরও বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন রয়েছে যে ডিজাইন গুলো পড়ে আপনি কিন্তু খুব সহজে অনলাইন থেকে উপার্জন করতে পারবেন এর জন্য আপনাকে আগে শিখতে হবে এই ডিজাইনগুলো কিভাবে করতে হয়।

যদি আপনি আগে খুব ভালোভাবে শিখতে পারেন এই ডিজাইনগুলো কিভাবে করতে হয় তাহলে পরবর্তী সময় কিন্তু বিভিন্ন ধরনের অনলাইন মার্কেটপ্লেসে সেই গুলো বিক্রি করতে পারবেন এবং যদি আপনি খুব ভালো মানে ডিজাইন করতে পারেনি সেই ডিজাইন গুলো যদি অনলাইনে ন্যাশনাল বা বিখ্যাত সোশ্যাল মার্কেটপ্লেসগুলোতে বিক্রি করতে পারেন তাহলে কিন্তু অনেক পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন।

খুব সুন্দর একটি ডিজাইন তৈরি করলেন যে ডিজাইন টি এর আগে কেউ তৈরি করেনি এবং এই ডিজাইন টা যদি আপনি ফাইবারের বিক্রি করেন আশা করা যায় আপনি একটি ডিজাইন থেকে মিনিমাম পঞ্চাশ থেকে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন সেখানে কিন্তু এমনও রয়েছে যারা ছোটখাট কাজের জন্য আপনাকে মিনিমাম 500 থেকে 1000 টাকা পর্যন্ত দিবে যে কাজটি আপনি বাংলাদেশের সর্বোচ্চ 50 থেকে 100 টাকা পেতেন।

ফাইবারের ডিজাইন এর কাজ যদি আপনি অনলাইনে কাজ করতে চান এবং ডিজাইনের কাজ করতে চান এক্ষেত্রে আপনি সর্বপ্রথম চেষ্টা করবেন ফাইবারে কেননা এটি হচ্ছে বিশ্বের অন্যতম একটি সোশ্যাল প্লাটফর্ম যেখানে আপনার বানানোর বিষয়গুলো বিক্রি করতে পারবেন যে কোন বিষয়ে এখানে আপনি বিক্রি করতে পারবেন খুব ভালো দামে আপনার যে ব্যায়ারগুলো থাকবে অর্থাৎ যারা ক্রেতা তারা কিন্তু বাংলাদেশের নয় অন্যান্য দেশের ক্রেতা সেখানে দেখতে পাবেন।

আমাদের বাংলাদেশের কিন্তু ডিজাইনের মান খুবই কম কিন্তু একইভাবে এই ডিজাইনের মান অন্যান্য দেশে খুব ভালো এবং খুব বেশি দামে বিক্রি করতে পারবেন ফাইবারে আপনি অনেক ধরনের কাজ পাবেন সেখানে মূলত সবচেয়ে বেশি যে কাজটি দেখা যায় সেটি হচ্ছে ডিজাইনের অনলাইনের বিভিন্ন কাজ ডিজাইন সেখানে যেতে পারবেন যেমন ধরুন সাধারন ডিজাইন রয়েছে ইউটিউব থাম্বেল ডিজাইন অ্যাপ্লিকেশন ডিজাইন আরও বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন রয়েছে যেগুলো আপনি ফাইবারে প্রবেশ করার পর দেখতে পারবেন।

এডিটিং এর জন্য ভালো অ্যাপ অনলাইনে অনেক হয়েছে বা আপনি চাইলে গুগল প্লে স্টোর থেকে ভালো যে অ্যাপ গুলো রয়েছে সেগুলো সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন কেননা আপনি যদি ডিজাইনের কাজ করেন অবশ্যই আপনাকে প্রথম দেখে খুব ভালোভাবে কাজ গুলো শিখতে হবে এবং খুব সুন্দর ভাবে কাজ গুলো শিখতে হবে জানো আপনি যাকে কাজটি বিক্রি করে দিবেন পরবর্তী সময়ে সে জন্য আপনার থেকে আরো অন্যান্য কাজগুলি নেয়।

ডিজাইন খুব ক্ষুদ্র ভাবে সুন্দর সুন্দর করে আপনাকে সমস্ত কাজগুলো করতে হবে তাহলে কিন্তু আপনি খুব সহজেই ফাইবারে প্রতিদিন অর্ডার পাবেন আরো বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে যেগুলো দেখতে পারেন তবে ডিজাইনের কাজ শুধুমাত্র ফাইবার নয় অনলাইনে অনেক মার্কেটপ্লেস হয়েছে যেখানে ডিজাইনের কাজ গুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভাবে দেখা হয় এবং আপনি চাইলে সেখানে আপনার নতুন ডিজাইন বিক্রি করে খুব ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

অনলাইনে টিউশনি করিয়ে অর্থ উপার্জন।

এই কাজটি চাইলে একজন মেয়ে ও করতে পারবে খুব সহজে অনলাইনে আপনি টিউশনির মাধ্যমে উপার্জন করতে পারবেন তবে এখানে আপনাকে ভালো পরিমাণে পরিশ্রম করতে হবে তাহলেই টিউশনি করে আপনি প্রতিমাসে ভাল অঙ্কের টাকা ইনকাম করতে পারবেন এখান থেকে।

2020 সালের সময় অনলাইনে টিউশনি কিন্তু খুব বেশি পরিমানে বেড়ে গিয়েছিল কেননা তখন করোনাকালীন ছিল যার কারণে সবাই বাসায় থেকে অনলাইনে টিউশনি করেছে বর্তমান সময়ে কিন্তু অনেক টিউশনি করতেছে অনলাইনে তবে আপনি যদি একজন উচ্চশিক্ষিত হয়ে থাকেন অর্থাৎ আপনার যদি পড়াশোনা বিষয়ক ভাল ধারনা থাকে তাহলে কিন্তু অনলাইনে টিউশনি করাতে পারবেন।

অবশ্যই আপনাকে এখানে কিছু বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে আপনি যে স্টুডেন্টদেরকে পড়াবেন তাদেরকে চেষ্টা করবেন খুব ভালো ভাবে বোঝানোর জন্য যেন তারা সেই বিষয়টি খুব ভালোভাবে বুঝে কেননা যদি আপনি তাদেরকে খুব ভালো ভাবে বোঝানোর চেষ্টা না করেন এক্ষেত্রে কিন্তু পরবর্তী সময় দেখা যাবে এক মাস সর্বোচ্চ দুই মাস পর পর তারা আর আপনার কাছে টিউশনি করবেনা।

অনলাইনে টিউশনি করার মাধ্যম হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে গুগোল মিট , জুম আরও বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি লাইভ ক্লাস করাতে পারবেন তবে উপরে যে নামটি উল্লেখ করে দিয়েছি চেষ্টা করবেন এইগুলো দ্বারা ক্লাস করানো খুব সহজভাবে কিন্তু আপনি অনলাইনে টিউশন পরিয়ে প্রতিমাসের ভালো পরিমাণে উপার্জন করতে পারবেন।

এর জন্য আপনার পরিপূর্ণভাবে শিক্ষা থাকতে হবে তাহলেই কিন্তু অনলাইনে টিউশনি করাতে পারবেন প্রথমত আপনি আপনার গ্রামের বা পরিচিত বড় ভাই ব্রাদার কে বলবেন কেউ যদি অনলাইনে টিউশনি করতে চায় তাহলে আপনার সাথে যেন যোগাযোগ করে প্রথমত অবস্থায় আপনার স্টুডেন্ট খুব কম থাকলেও যদি আপনি খুব ভালোভাবে বোঝাতে পারেন এবং আপনার থেকে যদি তারা ভালো কিছুই বুঝতে পারে এক্ষেত্রে দেখবেন যে অনলাইনে অনেক স্টুডেন্ট আপনার টিউশনি করার জন্য আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

বর্তমান সময়ে অনেক স্টুডেন্ট অনলাইনে টিউশনি করতেছে তো সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে আপনাকে স্টুডেন্টকে খুব ভালোভাবে বোঝাতে হবে যেন একজন স্টুডেন্ট খুব সহজে আপনার কথাগুলো বুঝতে পারে এবং পড়াশোনা যেন সে খুব ভালোভাবে এগোতে পারে তাহলে কিন্তু আপনার টিউশনি করিয়ে প্রতিমাসে ধীরে ধীরে ইনকাম বাড়াতে পারবেন এটি কিন্তু খুব সহজ একটি উপায় সেরকম কোনো পরিশ্রম করতে হবে না শুধুমাত্র স্টুডেন্টকে ভালোভাবে বোঝাতে হবে।

আশা করি এখান থেকে কিছুটা হলেও আপনি উপকৃত হবেন যদি আপনার কাছে আমাদের আজকের আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন নতুন কিছু জানার জন্য নতুন কিছু শিখার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকবেন ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.